প্রাচীন একটি ফলের চাষ : আতা ফল ও বাণিজ্যিক সম্ভাবনা

Saturday, 06 October 2018 01:52 PM

কথায় কথায় বলা হয় সবুরে মেওয়া ফলে!আসলে তাই এই মেওয়া বা আতা ফলটি ফলতে প্রায় ৪-৫ মাস সময় নেয়।!! এই ফলটি কিছু প্রজাতির খুব মিষ্টি ও পুষ্টিকর হলেও আজ অবধি আমাদের দেশে এর ব্যাবসায়িক পরিমণ্ডল এখনো গড়ে ওঠেনি সেভাবে।বেশিরভাগই বাড়ির আশেপাশেই অথবা জঙ্গলে খুব অযত্নে অবহেলায় পরে থাকে।।স্থানীয় অল্প কিছু বাজারে এগুলো বিক্রি হলেও সেভাবে এই ফলের কোন প্রচার নেই।আসুন জানা যাক এই আতা সম্পর্কে।আতা হল অ্যানোনেসি (Annonaceae) পরিবারভুক্ত এক ধরনের যৌগিক ফল। এটি শরিফা, শরীফা এবং নোনা নামেও পরিচিত। এই ফলের ভিতরে থাকে ছোট ছোট কোষ। প্রতিটি কোষের ভেতরে থাকে একটি করে বীজ, বীজকে ঘিরে থাকা নরম ও রসালো অংশই খেতে হয়। পাকা ফলের বীজ কালো এবং কাচা ফলের বীজ সাদা। বীজ বিষাক্ত। এটি গুচ্ছিত ফল অর্থাৎ একটি মাত্র পুষ্পের মুক্ত গর্ভাশয়গুলো হতে একগুচ্ছ ফল উৎপন্ন হয় ৷এর বেশ কয়েকটি প্রজাতি ও প্রকরণ আছে। সবগুলোকেই ইংরেজিতে 'কাস্টার্ড অ্যাপল', 'সুগার অ্যাপল', 'সুগার পাইন এপল' বা 'সুইটসপ' (Custard-apple, Sugar-apple, sugar-pineapple or sweetsop) বলা হয়। সবগুলোকেই বাংলায় 'আতা', 'শরিফা', 'নোনা' -এই তিনটি নামে ডাকা হয়। অঞ্চলভেদে নামের কিছু পার্থক্য আছে।
বর্তমানে সাতটি এনোনা (Annona) গণভুক্ত 'প্রজাতি' এবং একটি 'শঙ্কর জাত' পৃথিবীজুড়ে বাড়ির আশেপাশে বা বাণিজ্যিক ভিত্তিতে চাষ করা হয়। সবগুলোই সুস্বাদু ফল।

এর জনপ্রিয় প্রজাতিগুলো হচ্ছে-

  • Annona squamosa -এটিই বপশ্চিম বাংলায়সবচেয়ে বেশি জন্মে। স্বাদেও এটিই সেরা। সুমিষ্ট এই ফলটি আতা নামে বেশিরভাগ স্থানে পরিচিত। তবে কোথাও কোথাও একে শরিফা বলা হয়। হিন্দিতেও একে শরিফা (शरीफा) বলা হয়। সংস্কৃত ভাষায় এর নাম সীতাফলম। এর চামড়ায় গুটি গুটি চোখ আছে।

  • Annona reticulata -এর চামড়া মসৃণ, লালচে রঙ, স্বাদে কিছুটা নোনতা। নোনাফল নামে বেশি পরিচিত; তবে কোথাও কোথাও এটিকেই আতা বলা হয়। সংস্কৃত ভাষায় একে রামফলম বলা হয়।

  • Annona senegalensis -ইংরেজিতে একে 'আফ্রিকান কাস্টার্ড অ্যাপল' বলা হয়। এরও চামড়া মসৃণ, হলদেটে রঙ। এটিও নোনাফল নামে বেশি পরিচিত। আফ্রিকান নোনা নামেও ডাকা হয়।

  • Annona muricata -ইংরেজিতে একে 'সাওয়ার-সপ' (soursop বা graviola) বলা হয়। এরও চামড়া প্রায় মসৃণ, সবুজ রঙ। এটি 'শুল-রাম ফল' বা 'লক্ষ্মণ ফল' নামেও পরিচিত। মধ্য আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল ও আফ্রিকায় এটি জন্মে।

  • Annona cherimola - এর চামড়াও অনেকটা মসৃণ। হিন্দিতে একে হনুমান ফল বলা হয়।

এছাড়া 'থাই লেসার্ড' এবং 'কাম্পং মভ' (Thai-Lessard, Kampong-Mauve) নামে এর দুটি প্রকরণ (variety) দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় পাওয়া যায়।
আতা ফলের পুষ্টি উপাদান ছাড়াও এর কিছু ঔষধি তৈয়ারীতে (হজমশক্তি বৃদ্ধি ও অপুষ্টি জনিত রোগে)এর পাতা ও ফল কাজে আসে।সুতরাং এটিকে বাণিজ্যকরণের যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে।

- অমরজ্যোতি রায়

English Summary: Ata fol chash

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.