অপেক্ষাকৃত স্বল্প শ্রমে গম চাষ করে অধিক উপার্জন

KJ Staff
KJ Staff

 পরিবর্তিত সময়ের সাথে সাথে, মানুষ কৃষিক্ষেত্র সহ জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে নতুন কৌশল এবং প্রযুক্তি গ্রহণ করছে। কৃষিতে বিভিন্ন গবেষণা পরিচালিত হয়েছে, যার ফলস্বরূপ অনেকগুলি নতুন পণ্যের আবিষ্কার হয়েছে। এই ধারাবাহিকতায়, কার্নালের ভারতীয় কৃষি গবেষণা কাউন্সিল কর্তৃক গমের এক নতুন জাত উদ্ভাবিত হয়েছে।  এই গমটির নামকরণ করা হয়েছে 'করণ বন্দনা', যা উচ্চ ফলনশীল। বিজ্ঞানীদের মতে, এটি কৃষকদের আরও বেশি লাভে সহায়তা করবে।  একইসাথে এর চাষাবাদে, কৃষকদের আগের তুলনায় কম শ্রম প্রয়োজন হবে।

এই গমের জাতটি সহজেই উত্তর-পূর্ব ও উত্তর অঞ্চল রাজ্যে কৃষিকাজের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।  বিজ্ঞানীদের বক্তব্য অনুযায়ী জানা গেছে যে, 'করণ বন্দনা'- 'ব্লাস্ট' নামক রোগের প্রতিরোধের পাশাপাশি উচ্চ ফলন উত্পাদন করতে সক্ষম।  এর চাষের জন্য পূর্ব উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ এবং আসামের মতো রাজ্যের মাটি এবং জলীয় বাষ্প উপযুক্ত।  বিশেষজ্ঞদের মতে, অন্যান্য জাতগুলি হেক্টরপ্রতি গড়ে ৫৫ কুইন্টাল ফলন দেয়, 'করণ বন্দনা' হেক্টর প্রতি ৬৪.৭ কুইন্টালের বেশি ফলন করতে সক্ষম।

করণ বন্দনা -DBW ১৮৭ এর বিশেষ বৈশিষ্ট্য -

  • উচ্চ গড় ফলন (প্রতি হেক্টরে ৪৮.৮ ক্যু), ফলন সম্ভাবনা (প্রতি হেক্টর ৬৪.৭ ক্যু)

 উচ্চ আয়রন সামগ্রী (৪৩.১ পিপিএম)।

  • NEPZ এর সেচ ও সময় মতো বপনের পর ৭৭ দিনের মধ্যে ফুল এবং ১২০ ​​দিনের মধ্যে তা পরিপক্ক হয়।
  • এই গমটিতে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ খনিজ।

বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে, এই নতুন জাতের গম ("করণ বন্দনা" -ডিবিডাব্লু ১৮৭) ছত্রাকজনিত রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সক্ষম এবং কঠোর আবহাওয়ায় বেঁচে থাকতে পারে।  এছাড়াও এটিতে প্রোটিন, দস্তা, আয়রন এবং আরও অনেকগুলি গুরুত্বপূর্ণ খনিজ রয়েছে।  বিশেষজ্ঞরা দাবি করেন যে, এই জাতটি সহজেই 'ব্লাস্ট' রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে। 

স্বপ্নম সেন (swapnam@krishijagran.com)

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters