Pearl Farming মুক্তো চাষে কম বিনিয়োগে লক্ষাধিক আয়

Pearl Farming process
Pearl Farming process

প্রাচীন ভারতে মুক্তোর ব্যবহার ছিল অবিশ্বাস্য ভাবে বেশি। রাজারাজড়ার থেকে রানী, মন্ত্রী থেকে রাজপুত্র। সবার গলা অথবা বাহুবন্ধতেই দেখা যেত মুক্তোর অলংকার। এখনকার মানুষদেরও মুক্তোর প্রতি দুর্বলতা একফোঁটা ফিকে হয়নি। বরং মুক্তোর চাহিদা দিনকে দিন আরও আকাশছোঁয়া হচ্ছে। সাজসজ্জা থেকে শুরু করে ভেষজ ঔষধ সবখানেতেই মুক্তোর অবদান অনস্বীকার্য। আমাদের দেশ সহ বিশ্বের সর্বত্রই মহিলাদের গয়নায় মুক্তোর ব্যবহার দেখা যায়। মুক্তার চাষ থেকে ভাল আয় করে কৃষকরা নিজেদের ভাগ্য ফেরাতে পারেন। মুক্তো চাষের খরচ কম এবং উপার্জন প্রায় চার পাঁচ গুণ। কৃষকরা এলাকার পুকুর, জলাশয় অথবা তাদের বাড়ির খালি জমিতে ছোট পুকুর খনন করে মুক্তো চাষ আরম্ভ করে দিতে পারেন। এই প্রতিবেদনে মুক্তো চাষ সম্বন্ধে জানানো হল, যাতে কৃষকরা এই চাষে আগ্রহী হন।

মুক্তো চাষ পদ্ধতি: (Pearl Cultivation) 

মুক্তো চাষের জন্য কমপক্ষে ১০ x ১০ ফুট পুকুরের প্রয়োজন। এই চাষের উপযুক্ত সময় অক্টবর থেকে ডিসেম্বর। বাণিজ্যিক মুক্তো চাষের জন্য, ০.৪ হেক্টর বা কিছুটা বড় আকারের পুকুরে সর্বাধিক ২৫০০০ ঝিনুক নিয়ে উৎপাদন শুরু করা যেতে পারে। এ জন্য কৃষককে উপকূলীয় অঞ্চল এবং পুকুর, নদী ও জলাশয় থেকে ঝিনুক সংগ্রহ করতে হবে। প্রতিটি ঝিনুকের মধ্যে সার্জিক্যালি চার থেকে ছয় মিমি. পর্যন্ত সাধারণ আকারের বা ডিজাইনের বীড প্রবেশ করাতে হবে। ঝিনুকগুলি এবার ১০ দিনের জন্য নাইলন ব্যাগে অ্যান্টি-বায়োটিক এবং প্রাকৃতিক ফিডে রাখতে হবে। এর পরে ঝিনুকগুলিকে জলাশয়ে রেখে দিতে হবে। ঝিনুকগুলি সাধারণত নাইলন ব্যাগে রেখে এবং বাঁশ বা বোতলের সাহায্যে ঝুলিয়ে এক মিটার গভীরতায় পুকুরে ডুবিয়ে রাখা হয়। কয়েকদিনের মধ্যে ভিতরে থেকে বেরিয়ে আসা উপাদানগুলি পুঁতির চারপাশে জমাট বাঁধতে শুরু করে এবং অবশেষে মুক্তোর রূপ নেয়। ঝিনুক কেটে মুক্তো  ৮-১০ মাস বাদে বার করতে হবে। পুকুর না থাকলে নিজস্ব জমিতে একটি পুকুর খনন করে স্বল্প স্তরে মুক্তো চাষ শুরু করা যেতেই পারে।

লাভ: (profit)

কৃষকরা যদি সমুদ্র অঞ্চল বা জলাশয় থেকে ঝিনুক সংগ্রহ করেন, তবে চাষে লাভের পরিমাণ বেশি থাকবে। অনেক মুক্তো চাষি সামুদ্রিক অঞ্চল থেকে ২০-৩০ টাকা দরে বেশি মাত্রায় ঝিনুক কেনেন। উৎপাদনের পরে, এক মিমি থেকে ২০ মিমি ঝিনুক মুক্তোর দাম প্রায় ৩০০ থেকে ১৫০ টাকা পর্যন্ত হয়। স্থানীয় বাজারের থেকে রফতানি সংস্থাগুলিতে মুক্তো বিক্রির আয় বেশি। মুক্তো বেরিয়ে যাওয়ার পর যে ফাঁকা ঝিনুক পরে থাকে, তাও বিক্রি করে অর্থলাভ অনেকটাই হয়। মুক্তোর চাষ পরিবেশের জন্যও উপযোগী। কারণ ঝিনুকের জন্য নদী ও পুকুরের জল পরিশোধিত হয়ে যায়। জল পরিষ্কার রাখতে ঝিনুকের জুড়ি মেলা ভার।

আরও পড়ুন:Terrace Poultry Farming: জেনে নিন ছাদে মুরগি পালন করার সহজ পদ্ধতি

মুক্তো চাষে প্রশিক্ষণ: (Training)

ওড়িশার ভুবনেশ্বর Central Institute Of Freshwater Aquaculture এ মুক্তো চাষের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। কৃষক এবং শিক্ষার্থীদের মুক্তো উত্পাদন সম্পর্কে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি প্রযুক্তিগত এবং বৈজ্ঞানিক প্রশিক্ষণ দেয়। মুক্তোর চাষের বৈজ্ঞানিক তথ্য দেশের কৃষি বিজ্ঞান কেন্দ্রগুলি থেকে পাওয়া যায়।

সহজ বিনিয়োগে যেই চাষগুলি ঘরে লক্ষ্মীর ভান্ডার গড়ে দেয়, তাদের মধ্যে মুক্তোর চাষ অন্যতম। সামান্য শ্রম ও বুদ্ধিমত্ততা প্রয়োগে এই চাষ করে সাধারণ যুবক-যুবতীও অসাধারণত্বের পরিচয় দিতে পারে।

আরও পড়ুন: Cotton Cultivation procedure সহজ পদ্ধতিতে তুলা চাষ করে দ্বিগুন উপার্জন

Like this article?

Hey! I am কৌস্তভ গাঙ্গুলী. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters