Easiest way of Potato Cultivation: আলু চাষের সহজতম পদ্ধতি শিখে হয়ে উঠুন লাভবান

Potato Cultivation
Potato Cultivation

আলু ছাড়া বাঙালির খাবারের রসনা একেবারেই তৃপ্ত হয় না, এই কথা অস্বীকারের কোনও জায়গায় নেই। আলু পোস্ত, আলু ভাজা, আলুর বড়া, আলুসেদ্ধ-- আলুর এইসব নানাবিধ পদ বাংলার মানুষদের যুগের পর যুগ তৃপ্ত করে এসেছে। রান্না করা আলুর বিভিন্ন পদ ছাড়াও এই সবজি ভীষণভাবে শরীরের পক্ষে স্বাস্থ্যসম্মতও বটে। আলুর চাহিদা গোটা বছর ধরে বাজারে রয়েছে। অন্য কোনও সবজি না হোক মাছে-ভাতে বাঙালি আলু ছাড়া দৈনন্দিন খাদ্যাভাসকে ভাবতেও পারেন না। আলুর চিপসও ভীষণ ভাবে দেশ তথা গোটা বিশ্বে জনপ্রিয়। বিভিন্ন বহুজাতিক সংস্থাও বাণিজ্যিক ভাবে আলুর চিপস বানিয়ে মানুষের কাছে বিক্রি করে।

চাষিরাও আলু ফলিয়ে প্রচুর লাভ পান, তাই দেশ তথা বাংলাতেও বহু চাষি আলু চাষের উপর মুখাপেক্ষি। সম্প্রতি আমাদের দেশে গাছ আলু বাণিজ্যিকভাবে চাষ করা হচ্ছে। এই গাছ আলুর পাতার কক্ষে গোলাকার অমসৃণ ত্বকবিশিষ্ট বুলবিল বা আলু উৎপন্ন হয়। এর বুলবিল বা গাছে জন্মানো আলু সবজি হিসেবে রান্না করে খাওয়া হয়। আসুন জেনে নেই গাছ আলু চাষ করার পদ্ধতি।

প্রয়োজনীয় জলবায়ু ও মাটি (Soil and Climate)

গাছ আলু চাষ করার জন্য উষ্ণ আবহাওয়া দরকার। তবে উপকূলীয় অঞ্চলে গাছ আলুর চাষ ভাল হয় না। যে স্থানে সূর্যের আলো পড়ে না সেস্থানে গাছ আলুর চাষ ভাল হয় না। জৈব পদার্থসমৃদ্ধ বেলে দোআঁশ ও দোআঁশ মাটিতে গাছ আলুর চাষ ভালো হয়।

চারা তৈরি পদ্ধতি

বুলবিল এবং মাটির নিচের কন্দ দ্বারা গাছ আলুর চারা তৈরি করা হয়। গাছ আলুর একটি গাছে প্রায় ২০০ টি বুলবিল বা আলু তৈরি হতে পারে। গাছ আলু গাছের প্রতিটি বুলবিল দিয়ে একটি চারা তৈরি করা সম্ভব। মনে রাখবেন বুলবিল গাছ বা মাটিতে এক বছর পর্যন্ত সজীব থাকতে পারে।

জমি তৈরি ও চারা রোপন (Land Preparation and Planting)

গাছ আলুর চাষ করার ক্ষেত্রে মাদা তৈরি করে নিতে হবে। মাদায় নিয়ম অনুসারে সার প্রয়োগ করতে হবে। গাছ আলু লাগানোর জন্য প্রথমে গর্ত তৈরি করে নিতে হবে। ১০ কেজি গোবর সার ও অন্যান্য সার মাটির সাথে মিশিয়ে গর্ত ভরতে হবে।

সার প্রয়োগ (Fertilizer)

গাছ আলু চাষ করার ক্ষেত্রে ১০ কেজি গোবর সার, ১৫০ গ্রাম থেকে ২০০ গ্রাম টিএসপি সার ও ১০০ থেকে ১৫০ গ্রাম এমওপি সার প্রতিটি গর্ত বা মাদায় দিতে হবে। গাছের বৃদ্ধির জন্য অল্পপরিমাণ ইউরিয়া সার দিতে পারেন। চারা লাগানোর প্রাথমিক পর্যায়ে এসব সার জমিতে দিতে হবে।

সেচ ব্যবস্থাপনা (Irrigation)

বর্ষার সময় গাছ আলু ক্ষেতে সেচ দেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই। তবে খেয়াল রাখতে হবে গাছ আলু গাছের গোড়ায় যেন জল না জমে। জল জমলে সঙ্গে সঙ্গে তা অপসারনের ব্যবস্থা করতে হবে। শুষ্ক মৌসুমে গাছের গোড়ায় সেচ দিতে হবে।

আরও পড়ুন: Barbel Fish Farming Process: জেনে নিন পুকুরে শিঙি মাছের সহজতম চাষের কৌশল

আগাছা দমন (Weed management)

গাছ আলু গোড়ায় আগাছা জন্মাতে দেওয়া যাবে না। যদি কখনও গাছের গোড়ায় আগাছা হয় তাহলে তা পরিষ্কার করতে হবে। গাছ একটু বড় হলেই গাছ বাড়ার জন্য বাউনি তৈরি করতে হবে। গাছ যাতে সঠিকভাবে বাড়তে পারে সেজন্য গাছ আলুর গাছ কোনো কাঠের গাছ বা অফলা গাছের কোলে লাগাতে হবে অথবা যেসব গাছের ডালপালা ও পাতা বেশি ও ঘন সেসব গাছ বাউনি দেয়ার জন্য ব্যবহার করা যায়।

পোকামাকড় দমন (Pest Control)

গাছ আলু গাছে তেমন কোন পোকার আক্রমণ হয় না। তবে মেটে আলুর মত বিছা ও লেদা পোকা মাঝেমধ্যে পাতা খায়। এই অসুবিধা থেকে বাঁচার জন্য প্রয়োজনীয় জৈব কীটনাশক ব্যবহার করতে হবে।

আলু অথবা বুলবিল পরিণত হলে একটা একটা করে হাত দিয়ে গাছ থেকে ছিঁড়ে তুলতে হবে। একটি গাছে ২০০ টি পর্যন্ত আলু হতে পারে। প্রতি হেক্টরে ১৫ টন পর্যন্ত গাছ আলু হতে পারে।

আরও পড়ুন: Flower Farming in Tub: ছাদের টবে বিভিন্ন রকমের ফুল চাষের পদ্ধতি

Like this article?

Hey! I am কৌস্তভ গাঙ্গুলী. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters