Cattle Nutrition and Diet: পশুপালনে বেশি আয় চান? গাবাদিপশুকে খাওয়ান সুষম খাদ্য

রায়না ঘোষ
রায়না ঘোষ
Cattle nutrition (image credit- Google)
Cattle nutrition (image credit- Google)

আপনি যদি পশুপালক হন, তবে এই নিবন্ধটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ | আপনার গোবাদিপুস আছে অথচ সঠিক লাভ করতে পারছেননা? এই সমস্যা অনেকেরই থাকে, সব পদ্ধতি সঠিক নিয়মে পালন করলেও, অনেকসময় আমরা পশুদের খাদ্য উপাদানের ওপর বিশেষভাবে নজর দিনা | আদৌ, তাদের সুস্হ খাদ্য দেওয়া হচ্ছে কিনা? গবাদিপশু পালন করে বেশি অর্থ উপার্জন করতে হলে, গাবাদিপশুকে খাওয়ান সুষম খাদ্য (Cattle balanced nutritions)|

সুষম খাদ্য ছাড়া গবাদিপশু বেশি বৃদ্ধি পায় না। গবাদিপশুর সুষম খাদ্য অর্থাৎ খাদ্যে আমিষ, শর্করা, স্নেহ বা চর্বি, খনিজ লবণ, ভিটামিন ও জল সঠিক অনুপাতে থাকে। গবাদিপশুর বৃদ্ধি ও গঠনে সুষম খাদ্যের গুরুত্ব অপরিসীম। সুষম খাদ্যের অভাবে পশুর অপুষ্টি দেখা দেয় এবং বিভিন্ন রোগ আক্রমণ করে।

আমিষ বা প্রোটিনের গুরুত্ব(Protein):

আমিষ বা প্রোটিন জাতীয় খাদ্য অন্ত্রে পরিপাক হয়ে অ্যামিনো অ্যাসিডে পরিণত হয়। পরে তা অন্ত্রে শোষিত হয়ে রক্তে মেশে এবং দেহের ক্ষয়পূরণ ও বৃদ্ধি সাধন করে। এ কারণে সব বয়সেই দেহে আমিষের প্রয়োজন থাকে। তবে বাড়ন্ত বয়সে এ চাহিদা থাকে আরো বেশি। আমিষের সহায়তায় দেহের ভেতরে জৈব অনুঘটক এনজাইম তৈরি হয়। যেমন, পেপসিন, ট্রিপসিন ইত্যাদি। এসব এনজাইম খাদ্যের প্রোটিন, লিপিড ও শর্করাকে ভেঙে সহজপাচ্য পুষ্টিতে রূপান্তরিত করে যা কোষ সহজেই শোষণ ও সদ্ব্যবহার করতে পারে। পশুর দেহের রক্ত, পেশী ও সংযোজক কলার প্রধান অংশই প্রোটিনে গঠিত। খাদ্যে প্রয়োজনের অতিরিক্ত প্রোটিন পশু দেহের শক্তি ও চর্বির উৎস হিসেবে কাজে লাগে।

আরও পড়ুন - Cattle hoof disease: জেনে নিন গবাদি পশুর ক্ষুরা রোগ ও প্রতিরোধ ব্যবস্থা

শর্করার গুরুত্ব(Carbohydrate):

শর্করা পশু দেহে কর্মশক্তি যোগায়। শর্করা খাদ্যান্ত্রে ভেঙে গ্লুকোজে পরিণত হয় যা অন্ত্রে শোষিত হয়ে রক্তে মিশে কার্যসম্পাদন করে। অতিরিক্ত শর্করা দেহে গ্লাইকোজেনরূপে জমা থাকে এবং খাদ্যে শর্করার অভাব হলে প্রয়োজনে সেই গ্লাইকোজেন কর্মশক্তি যোগায়।

স্নেহ জাতীয় খাবার(Fat):                                                                 

স্নেহ প্রাণী দেহের টিস্যুর একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। গবাদিপশুর প্রধানত তাপ ও শক্তির উৎস হিসেবে সঞ্চিত থাকে। সাধারণত গবাদিপশুর দানাদার খাদ্যে শতকরা ৪ ভাগ চর্বি জাতীয় পদার্থ থাকা প্রয়োজন।

খনিজ পদার্থ(Mineral):

খনিজ পদার্থ বাড়ন্ত পশুর নতুন অস্থি ও টিস্যু সৃষ্টিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই উপাদান কঙ্কালের আকৃতি ও দৃঢ়তা বজায় রাখে। পশুর লোম, ক্ষুর ও শিং গঠনে খনিজ পদার্থ প্রয়োজন। খনিজ পদার্থ যেমন- লৌহ রক্তে অক্সিজেন ও কার্বনডাইঅক্সাইড বহন করতে সহায়তা করে। আবার পটাসিয়াম পশুর দেহের তরল পদার্থের অ্যাসিড বেসের সমতা রক্ষা করে।

যেসব জৈব যৌগ খাদ্য উপাদান হিসেবে অল্প পরিমাণ দেহের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য জরুরি তাদের ভিটামিন বলা হয়। প্রাণী দেহের জন্য পর্যাপ্ত আমিষ, শর্করা, স্নেহ ও খনিজ পদার্থ খাদ্যের সাথে সরবরাহ করেও ভিটামিন ছাড়া জীবন চালনা সম্ভব হয় না।

ভিটামিনের গুরুত্ব(Vitamin):

স্বাভাবিক টিস্যুর বৃদ্ধি, দৈহিক বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য ভিটামিন প্রয়োজনীয়। পশুখাদ্যে যদি ভিটামিন না থাকে অথবা সুষ্ঠভাবে ভিটামিন শোষিত না হয় কিংবা দেহে ভিটামিন সদ্ব্যবহার না হয় তবে সুনির্দিষ্ট রোগ হয়। যেমন, ভিটামিন ‘এ “-এর অভাবে রাতকানা, জনন কর্মক্ষমতা হারানো, ভিটামিন ‘কে’ -এর অভাবে রক্ত জমাট বাঁধতে সমস্যা হয় এবং ভিটামিন ‘ই’ -এর অভাবে জনন অকৃতকার্যতা পরিলক্ষিত হয়।

জলের গুরুত্ব(Water):

পশুদেহের শতকরা ৭০ থেকে ৯০ ভাগ জল থাকে। সাধারণত দানাদার খাদ্যে শতকরা ১০ ভাগ ও খড় জাতীয় খাদ্যে শতকরা ১৫ ভাগ জল থাকে। আবার সবুজ ঘাসে জলের পরিমাণ শতকরা ৯০ ভাগ। পশুখাদ্যে প্রচুর পরিমাণ জল থাকা সত্ত্বেও পশুকে পৃথকভাবে জল সরবরাহ করতে হয়। কারণ জল  দেহের কোষের কাঠিন্য ও স্থিতিস্থাপকতা বজায় রাখে। এতে প্রাণিদেহের কাঠামো ঠিক থাকে। জল ছাড়া দেহে যেকোনো ধরনের রাসায়নিক বিক্রিয়া ঘটা সম্ভব নয়। জল দেহের এক অঙ্গ থেকে অন্য অঙ্গে বিভিন্ন পুষ্টিকারক পদার্থ সরবরাহ করে। তাছাড়া জল দেহের অতিরিক্ত তাপ শোষণ করে।

উপরিউক্ত বিষয়গুলি মাথায় রাখা খুবই জরুরি | তবেই, পশুপালক তথা কৃষকবন্ধুরা পশু খামার থেকে মোটা টাকা উপার্জন করতে পারবেন |

আরও পড়ুন -Pastured Poultry Farming: কিভাবে চারণভূমিতে হাঁস, মুরগি পালন শুরু করবেন?

Like this article?

Hey! I am রায়না ঘোষ . Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters