দুগ্ধ উদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় কৃষকরা লোণ পেতে পারেন ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত

Friday, 17 January 2020 06:33 PM

ভারতে পশুপালন ক্ষেত্রকে উন্নীত করতে এবং দুগ্ধচাষীদের সহায়তা করার জন্য সরকার বহু পরিকল্পনা চালু করেছে। পশুপালন, গবাদিপশু ও মৎস্য অধিদফতর (ডিএএইচডি এবং এফ) ২০০৫-০৬ সালে দুগ্ধ ও হাঁস-মুরগির জন্য “ভেনচার ক্যাপিটাল স্কিম” নামে একটি পাইলট স্কিম চালু করেছিল।  দুগ্ধ খাতে কাঠামোগত পরিবর্তন আনতে এই প্রকল্পটির লক্ষ্য ছিল ছোট দুগ্ধ খামার স্থাপন ও অন্যান্য উপাদান স্থাপনে সহায়তা বৃদ্ধি। পরে, ডিএএইচডি এবং এফ এর নাম পরিবর্তন করে 'দুগ্ধ উদ্যোক্তা বিকাশ প্রকল্প' (ডিইডিএস) করে এবং সংশোধিত প্রকল্পটি ২০১০ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হয়।

ন্যাশনাল ব্যাংক ফর এগ্রিকালচার অ্যান্ড পল্লী বিকাশ, যা নাবার্ড নামে পরিচিত, এই প্রকল্প বাস্তবায়নের নোডাল এজেন্সি। সমবায় ব্যাংক, বাণিজ্যিক ব্যাংক ও আঞ্চলিক পল্লী ও নগর ব্যাংক, রাজ্য সমবায় কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন ব্যাংক এবং এই জাতীয় সংস্থা যেগুলি নাবার্ড থেকে পুনঃবিবেচনার জন্য যোগ্য, তারাও এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে।

'দুগ্ধ উদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রকল্প' এর উদ্দেশ্য -

১)পরিষ্কার দুগ্ধ উৎপাদনের জন্য নতুন / আধুনিক দুগ্ধ খামার স্থাপনের প্রচার ক...

২)গরু বাছুর লালনপালনের জন্য পালককে উত্সাহিত করা।

৩)বাণিজ্যিক স্কেলে দুগ্ধ পরিচালনা করার মান ও ঐতিহ্যবাহী প্রযুক্তির উন্নতিসাধন।

৪)অসংগঠিত খাতে কাঠামোগত পরিবর্তন, যাতে প্রাথমিক পর্যায়ে গ্রাম পর্যায়ে প্রাথমিক দুধ প্রক্রিয়াজাতকরণ করা যায়।

৫)স্ব-কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং মূলত অসংগঠিত খাতের অবকাঠামো সরবরাহ করা।

দুগ্ধ উদ্যোক্তা উন্নয়ন প্রকল্প থেকে কারা উপকৃত হতে পারেন?

  • এই প্রকল্পের আওতায় বেশ কয়েকটি গোষ্ঠী সহায়তা পাবেন। যেমন - কৃষক, স্বতন্ত্র উদ্যোক্তা, সংস্থা, এনজিও, সংগঠিত গোষ্ঠীগুলি (স্বনির্ভর গোষ্ঠী, দুগ্ধ সমবায় সমিতি, দুধ ফেডারেশন, দুধ ইউনিয়ন)।
  • কোনও ব্যক্তি যোজনার আওতাধীন সমস্ত উপাদানগুলির জন্য (প্রতিটি উপাদানগুলির জন্য কেবল একবার) সহায়তা পেতে সক্ষম হবেন।
  • পরিবারের একাধিক সদস্য ডেয়ারি এন্টারপ্রেনারশিপ ডেভলপমেন্ট স্কিমের আওতায় বিভিন্ন স্থানে পৃথক অবকাঠামো সহ পৃথক ইউনিট স্থাপন করলে তাদের সহায়তা করা যেতে পারে।

প্রকল্পটির সুবিধা -

মিল্কিং মেশিন / দুগ্ধ পরীক্ষক / বাল্ক মিল্ক কুলিং ইউনিট কেনার জন্য (৫০০০ লিটার সক্ষমতা পর্যন্ত) - ২০ লক্ষ টাকা এবং দেশি দুগ্ধজাত পণ্য উৎপাদনের জন্য দুগ্ধ প্রক্রিয়াকরণ সরঞ্জাম কেনার জন্য - ১৩.২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত পশুপালক পেতে পারেন।

স্বপ্নম সেন (swapnam@krishijagran.com)

English Summary: Farmers- Can -Get- Loans- up -to- Rs 20 lakh -under -Dairy- Entrepreneurship -Development- Scheme

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.