বদ্রী পাখির চাষ – বিকল্প আয়ের উৎস

KJ Staff
KJ Staff

অধিকাংশ প্রাণী পালনেই দরকার সবুজ ঘাস, যা বেশির ভাগ সময়েই পাওয়া যায় না এবং দানা জাতীয় খাবার যার দাম অত্যধিক বেশি। এই প্রেক্ষিতে বিকল্প আয়ের জন্য রঙিন পাখির চাষ খুবই লাভজনক এবং এতে খাবার খরচ খুবই কম। বিভিন্ন রঙিন পাখি যেমন – বদ্রী, লাভ বার্ড, ফ্রীঞ্চ, ককটেল, জাভা ইত্যাদি পাখির চাষ বর্তমানে খুবই জনপ্রিয় হয়েছে। যারা নূতন ব্যবসা শুরু করতে চান, বদ্রী চাষ তাদের জন্য নিরাপদ এবং অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের উপায়।

বদ্রী পাখির ঘর : - 

১০০ টি বদ্রী পাখির জন্য – ১৫ ফুট লম্বা ৪ ফুট চওড়া ও ৪ ফুট উচ্চতা যুক্ত ঘরে তারের জাল দিতে হবে।

যদি আলাদা করে ঘর করার জায়গা না থাকে তবে যাদের বাড়ীতে দেশী মুরগী আছে, সেই মুরগী ঘরের উপরে দোতলা করে পাখি পোষা যেতে পারে। এতে দেখভালের সুবিধা হয়।

ঘরের তলায় ইট বিছিয়ে দিতে হবে। সিমেন্ট দিয়ে বাধালে মল-মুত্রের জল টানবে না, আবার মেঝে মাটির হলে বদ্রী পাখি মাটি খুড়বে। ঘরের চারদিক খোলা থাকবে কিন্তু চটের ঝাঁপ বানাতে হবে। উত্তরের হাওয়া থেকে বাঁচাতে ঝাঁপ ফেলে রাখতে হবে।

ঘরের শোধন : বদ্রী পাখি পালনের এক সপ্তাহ আগে মেঝেতে ৩০০ গ্রাম চুন ছড়াতে হবে।

ছাদে খড় দিতে হবে।

পোকা হলে – পাখি রাখা অবস্থায়, বুটক্স ৩ মিলি (১০০ পাখির জন্য), ২ লিটার জলে মিশিয়ে ছিটিয়ে দিতে হবে। প্রয়োজন অনুযায়ী ১৫ দিন বাদে আবার একবার দিতে হবে।

ভাঁড় : প্রতি জোড়া পাখির জন্য একটি করে ভাঁড় দিতে হবে। ১ ফুট বাদে বাদে ভাঁড় দিতে হবে। লম্বা ও চওড়ায় সব দিকে। ভাঁড় কাছাকাছি হলে পাখিরা ঝগড়া করে। বৈশাখ-জৈষ্ঠ মাসে ভাঁড় নামিয়ে রাখতে হবে। এতে পাখি ডিম পাড়তে পারবে না। পাখির এই বিশ্রাম খুবই জরুরী।

জলের পাত্র : পাথরের বাটিত (যাতে না ওলটাতে পারে)। ১০০  টি বদ্রী পাখির জন্য ২০০ মিলিলিটার আয়তনের দুটি বাটি খাবার দেওয়ার জন্য রাখতে হবে। কোন আলোর দরকার নেই।

বদ্রী পাখির খাবার :

  • ঘাসের দানা – ১টা পাত্রে ৫০০ গ্রাম + ১টা পাত্রে ৫০০ গ্রাম, মোট ১ কেজি সারা দিন ১০০ পাখির জন্য এবং কাঁচা ছোলা ভিজিয়ে ৫০ গ্রাম প্রতি ১০০ বদ্রী পাখির জন্য দিতে হবে।
  • সমুদ্র ফেনা ২-৫ টা প্রতি সপ্তাহে (সপ্তাহে ৩ দিন)।
  • সবজি

কলমী শাক ২ দিন প্রতি সপ্তাহে ২০০ গ্রাম/ ১০০ পাখি

হিনচে শাক ২ দিন প্রতি সপ্তাহে ২০০ গ্রাম/ ১০০ পাখি

কুলেখারা শাক ২ দিন প্রতি সপ্তাহে ২০০ গ্রাম/ ১০০ পাখি

থানকুনি শাক প্রত্যেক দিন ১০০ গ্রাম (১০০ পাখির জন্য)

তুলসী পাতা প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমানে দেওয়া যেতে পারে।

  • ২ দিন কলমী দিলে পরের সপ্তাহে হিনচে দিতে হবে, কারণ একই সপ্তাহে বেশি শাক দিলে পাখির ঠান্ডা লেগে যাবে।
  • সপ্তাহে একদিন গম সেদ্ধ করে দিতে হবে। গম পাত্রে ভিজিয়ে দিয়ে (১৫০ গ্রাম গম) সকালে ১৫-৩০ মিনিট সেদ্ধ করে দিতে হবে। যখন গম সেদ্ধ করে দেওয়া হবে, তখন দানা খাবার বার করে নিতে হবে।
  • ৫০ গ্রাম চালের ভাত প্রতি ১০০ পাখীর জন্য দিতে হবে । তেতো ওষুধ (সালফার গ্রুপের) ভাতের সাথে দিতে হবে।
  • ১০০ গ্রাম বীট লবন প্রতি ১০০ পাখি প্রতি সপ্তাহে। বীটলবন পাত্রে না রেখে মাটিতে রাখলে ভালো হয় ভিজে যাবে না।
  • লাল বালি একটি পাত্রে দিতে হবে। এটি এদের হজমে সাহায্য করে।
  • ১০০-২০০ গ্রাম পাত্র করে দিতে হবে চুন।

তথ্য সূত্র : ড: সুভাশিস রায়, রামকৃষ্ণ আশ্রম কৃষি বিজ্ঞান কেন্দ্র, নিমপীঠ, দ: ২৪ পরগণা

রুনা নাথ(runa@krishijagran.com)

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters