Fish Disease – মাছ চাষে রোগ দেখা দিলে কি করবেন? কেন হয় মাছের রোগ? জানুন মাছ সম্পর্কে বিশেষ কিছু তথ্য

KJ Staff
KJ Staff
Fish Disease (Image Credit - Google)
Fish Disease (Image Credit - Google)

মানুষের মত মাছেদের দেহেও প্রচুর রোগভোগ রয়েছে, এই বিষয়টি যারা বাণিজ্যিকভাবে মৎস্য চাষ করেন তাঁরা এই বিষয়গুলি খুব ভালো মতন জানেন। বিশেষ করে যখন দামী মাছের ক্ষেত্রে এই রোগভোগ দেখা যায় তখন তার প্রতিকারের জন্য মৎস্যচাষীকে অনেকটাই ঝামেলা পোহাতে হয়, এবং মাছের রোগের উপশমের জন্য অনেক মূল্যবান ওষুধ প্রয়োগ করতে হয়।

কখনো কখনো তাতে রোগ সারে আবার কখনো মৎস্যচাষীকে লোকসান হজম করতে হয়। এখন সমস্যা হচ্ছে যারা মাছ চাষের সাথে অনেকদিন যাবত জড়িত আছেন তাঁরা যেমন চট করে মাছের রোগ বুঝতে পারে, নতুন যারা চাষ করছে তাঁদের ক্ষেত্রে মাছের রোগ নির্ণয় করা অতটা সহজ নয়, কখনো কখনো তো লক্ষণ বোঝাই যায় না, সেক্ষেত্রে মাছের চলন গমন ভঙ্গীমা দেখে বুঝতে হয়।

আসুন আমরা দেখে নি মাছের দেহে বিশেষ করে বাণিজ্যিক মৎস্য পালনের ক্ষেত্রে কী কী রোগ হতে পারে -

মাছের রোগ দুই ধরণের কারণবশতঃ হয় (Fish Disease) - 

১। প্যাথোজেনিক ২। প্যারাসাইটিক

প্যাথোজেনিক - 

ক) ভাইরাল ইনফেক্সন; যেমন-ইসোসিড লিম্ফোসারকোমা

এই ভাইরাসঘটিত রোগটি একটি ছোঁয়াচে টিউমারঘটিত রোগ, যা প্রধানত দুই ধরণের মাছের দেহকে আক্রান্ত করে, নরদার্ণ পাইক(আমেরিকা), এবং মাস্ক লাং (ইউরোপ)। এই রোগে টিউমার প্রথমত চামড়ায় তৈরি হয়। প্রথমে রোগটি আমেরিকা ও ইউরোপের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও, বর্তমানে এটি আন্তর্জাতিক সমস্যায় পরিণত হয়েছে।

খ) ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন; যেমন-সিউডোমোনাস ফ্লুরোসেন্স (পাখনা পচা এবং মাছের ড্রপসি)

গ) ছত্রাক ঘটিত রোগ

ঘ) জল ঘটিত রোগ; যেমন-স্যাপ্রোলেগ্নিয়া এসপি।

প্যারাসাইটিক - 

ক) মেটাজোয়ান প্যারাসাইট; যেমন-কপপডস্‌।

খ) এককোশী প্যারাসাইট; যেমন-ইচ্‌থাইপ্‌থিরিস মাল্টিফিলিস এতে মাছের দেহে চুলকানিজনিত লক্ষণ সৃষ্টি হয়।

গ) কৃমি ঘটিত রোগ; (হেলমিনথ্‌ প্রজাতি)-যেমন-উইসট্রোনজিলাইস্‌।

এই রোগ গুলি ছাড়াও রয়েছে কান্‌সা পচা রোগ

মাছ রোগগ্রস্থ হলে করণীয় পদক্ষেপ (Disease management) :

  • কোন্ পুকুরের মাছ রোগগ্রস্থ তা সঠিক ভাবে চিহ্নিত কুরুন।

  • প্রত্যেকটি রোগগ্রস্থ মাছকে আলাদা করে কোন জলাশয়ে রাখুন।

  • জলের গুণগত মানের কোন আকস্মিক বা অস্বাভাবিক পরিবর্তন ঘটছে কিনা তা খেয়াল রাখুন ও নথিভুক্ত করুন।

  • জলের দ্রবীভূত, অ্যামোনিয়া, নাইট্রেট ও জলের pH এর মাত্রা পরীক্ষা করুন।

  • মাছের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।

আরও পড়ুন - Pisciculture – গ্রামীণ যুবক ও মহিলাদের কর্মসংস্থান, আয়ের সুযোগ প্রচুর

সুতরাং, বাণিজ্যিক ভাবে যারা মাছ চাষ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছো; তাঁদের উদ্দেশ্যে বলা হচ্ছে, এই রোগভোগ গুলির জন্য বিশেষ ভাবে অবগত হয়ে তারপর তাঁরা যেন এই কাজে উদ্যোগী হয়; নাহলে অর্থনৈতিক ক্ষতি হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন - Profitable Goat Rearing - এই প্রজাতির ছাগল পালন আপনাকে দেবে সবচেয়ে বেশী মুনাফা

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters