হাঁস-মুরগি প্রতিপালন - সবচেয়ে লাভজনক ব্যবসা

Thursday, 14 February 2019 12:39 PM

হাঁস-মুরগি চাষ ইতিমধ্যেই লাভজনক ব্যবসা হিসাবে প্রমাণিত হয়েছে, সুতরাং আপনি আপনার নতুন আয়ের উৎসের জন্য একটি খামার শুরু করতে ইচ্ছুক হতে পারেন। বিস্তারিত ভাবে বলতে গেলে পোল্ট্রিতে বিভিন্ন হাঁস মুরগি মাংসের জন্য, ডিমের জন্য বা পালকের জন্য উৎপাদন করা হয়। গরুর মাংস, শুয়োরের মাংস এবং মাছের পাশাপাশি হাঁস ও মুরগির পণ্যগুলি  প্রোটিনের প্রধান উৎস বলা হয়, এবং মুরগি মানুষের জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাণিজ্যিক ভিত্তিতে হাঁস-মুরগির চাষ মানুষের বিপুল পরিমাণ অর্থ উপার্জন করার সুযোগ দেয়। হাঁস-মুরগির চাষ একটি অত্যন্ত লাভজনক ব্যবসা, যদি আপনি এটি উপযুক্তভাবে গ্রহণযোগ্য পদ্ধতিতে এবং হাঁস ও মুরগির জন্য উপযোগী পরিবেশের অধীনে চালাতে পারেন। প্রকৃতপক্ষে প্রতিটি ধরনের ব্যবসা ভাল মুনাফার জন্য বিশেষ ক্রিয়াকলাপের নীতি অনুসরণ করে। এবং যখন এই সব নীতিগুলি উপেক্ষা করা হয়, তখন ব্যবসাতে গুরুতর ক্ষতি হয়। তাই শুরু করার আগে, ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হবে। কিছু সময় নিন এবং বুঝতে হবে কেন কিছু কিছু পোল্ট্রি চাষীরা বেশ লাভ করে এবং তাদের মধ্যে কিছু ব্যর্থ হয়। সফল হাঁস মুরগির চাষ করতে গেলে আপনাকে খাটতে হবে, কিন্তু সময় সময় এই চাষ সোজাও বটে।

লগ্নী - পোল্ট্রি চাষের জন্য মূলধন প্রয়োজন। আপনি নিজের টাকা দিয়ে ব্যবসা করতে পারেন বা আপনি ব্যাংক ঋণের জন্য আবেদন করতে পারেন। উভয় সরকারী এবং বেসরকারি ব্যাংক পোল্ট্রি চাষের ব্যবসা শুরু করার জন্য ঋণ উপলব্ধ করে।আপনি ঋণ প্রক্রিয়ার জন্য আপনার পছন্দসই ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। একজন শিক্ষানবিশ হিসাবে, আপনাকে সর্বনিম্ন সংখ্যক মুরগির সাথে শুরু করতে হবে যাতে করে আপনার কম খরচ হয়।

উৎপাদন প্রকার - প্রথমে  আপনার পোল্ট্রির খামারে কি ধরনের হাঁস ও মুরগি উৎপাদন করবেন তা নির্ধারণ করতে হবে। আপনি মাংস উত্পাদনের উদ্দেশ্যে ব্রয়লার মুরগি উৎপাদন করতে পারেন এবং আপনি বাণিজ্যিকভাবে ডিম উৎপাদনও  করতে পারেন।আপনি সরাসরি আপনার স্থানীয় গ্রাহকদের কাছে পোল্ট্রি পণ্য বিক্রি করতে পারেন। আপনার উৎপাদনের উদ্দেশ্য নির্ধারণ করুন, আপনার পছন্দসই উৎপাদন অনুসারে সঠিক হাঁস-মুরগির জাত নির্বাচন করুন এবং বিস্তারিত পরিকল্পনা করুন।

খামারের অবস্থান ঠিক করুন - আপনার ব্যবসার জন্য খামারের সঠিক অবস্থান নির্বাচন খুব গুরুত্বপূর্ণ। আপনার এমন একটি অবস্থান নির্বাচন করা উচিত যেখানে আপনার প্রয়োজনীয় সমস্ত সুবিধা আছে এবং ব্যবসার পক্ষে উপযুক্ত। এটি শহর থেকে সামান্য দূরে হতে পারে, যেখানে জমি এবং শ্রম বেশ সস্তা।কিন্তু শহর থেকে খুব দূরে খামারের অবস্থান ঠিক করবেন না, কারণ বেশিরভাগ শহরে জনসংখ্যা বেশী হয় তাই আপনাকে সেই বাজারে লক্ষ্য করতে হবে। এছাড়াও আবাসিক এলাকায় খামার স্থাপন এড়িয়ে চলুন কারন কারণ হাঁস-মুরগির খামার থেকে দুর্গন্ধ হয়। খামারের অবস্থান নির্বাচন করার সময় পরিবহন ব্যবস্থা ও ঔষধের সুবিধাগুলো বিবেচনা করুন।

ঘর নির্মাণ - খামারের অবস্থান নির্বাচন করার পরে, আপনার হাঁস ও মুরগির জন্য একটি ভাল ঘর নির্মাণ করতে হবে। নতুন ঘরে সব প্রয়োজনীয় সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। তিন ধরন ভাবে হাঁস মুরগির জন্য বাড়ি বানাতে পারেন। ব্যাপক, আধা নিবিড় এবং নিবিড়। বাণিজ্যিক উৎপাদন জন্য নিবিড় সিস্টেম সবচেয়ে সুবিধাজনক। আপনি মেঝে বা খাঁচা পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। গড়ে, ব্রয়লার পোল্ট্রির জন্য প্রায় ২.৫ বর্গ ফুট এবং লেয়ার পোল্ট্রির জন্য প্রায় ৪ বর্গফুট জায়গা প্রয়োজন। উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনি ২০০ টি স্তর চান তবে আপনাকে ৮০০ বর্গ ফুট জায়গা নিশ্চিত করতে হবে। খাঁচা পদ্ধতিতে প্রত্যেক প্রাণীর জন্য প্রায় ৪ বর্গ ফুট জায়গা  প্রয়োজন। খামারে সঠিক পরিমাণে আলো বাতাসের ব্যবস্থা করতে হবে।

প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম - আপনার পোল্ট্রি খামারের জন্য কিছু সরঞ্জাম কিনতে হবে। প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের তালিকা  নীচে দেওয়া হল।

  • ফিডার
  • বাসা
  • খাঁচা
  • বাক্স
ডিম ট্রে

ডিম ট্রে

কৃত্রিম পদ্ধতিতে ডিম ফুটিয়ে বাচ্চা বার করার যন্ত্র

  • ডিম ট্রে
  • আলোর যন্ত্র
  • হিটার
  • বায়ুচলাচল পদ্ধতি
  • বর্জ্য নিষ্পত্তি সিস্টেম

শ্রমিক - মুরগির সংখ্যার উপর নির্ভর করে, আপনি কম বা কম বা বেশী শ্রমিক নিয়োগ করতে পারেন । একজন শিক্ষানবিশ হিসাবে, আপনি যদি সর্বনিম্ন সংখ্যক মুরগি (২০০-৫০০) দিয়ে শুরু করেন তবে আপনি নিজের খামারটি সহজেই নিজের দ্বারা পরিচালনা করতে পারেন। আপনি যদি আরো মুরগি উৎপাদন করার পরিকল্পনা করেন তবে আপনার অতিরিক্ত শ্রমিকের দরকার হবে।

আরও পড়ুন কিভাবে মাছ চাষ ব্যবসা শুরু করবেন???

মুরগির বাচ্চা ক্রয় - সবকিছু প্রস্তুত করার পরে, আপনার এলাকায় বিশ্বস্ত জায়গা থেকে ভালো মানের মুরগির বাচ্চা কিনুন এবং তাদের যত্ন নেওয়া শুরু করুন। একজন শিক্ষানবিশ হিসাবে, এক দিনের বাচ্চা ক্রয় করুন। যদি আপনার  কোনো পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকে তাহলে বাচ্চাদের সংখ্যা সর্বনিম্নতে রাখুন (৫০০র বেশি নয়)।

প্রতিপালন - খাওয়ানো হাঁস-মুরগি চাষের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ। গৃহ নির্মাণ ও সরঞ্জাম এবং বাচ্চদের ক্রয় করার পরে, আপনার মুরগিদের খাওয়ানোর জন্য আপনাকে প্রচুর পরিমাণ অর্থ ব্যয় করতে হবে। আপনার মোট প্রকল্পপের খরচের প্রায় ৭০% এদের খাবারের পেছনে খরচা হবে এবং ব্যবসার সাফল্য পর্যাপ্ত খাওয়ানো উপর নির্ভর করে। আপনি বাজার থেকে খাবার  কিনতে পারেন অথবা নিজের দ্বারা খাদ্য প্রস্তুত করতে পারেন।

স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা - মুরগিদের বিভিন্ন ধরণের রোগের প্রবণতা এবং তাদের নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। তাই আপনাকে সচেতন হতে হবে এবং তাদের নিরাপদ রাখতে আপনার মুরগিদের যথাযথ যত্ন নিতে হবে। তাদের সময়মত টিকা এবং সর্বদা তাদের তাজা জল এবং খাদ্য প্রদান করার চেষ্টা করুন।

বিপণন - ভাল বিপণন কৌশল আপনার ব্যবসার থেকে লাভ দেবে। আপনি যদি বাজারে আপনার পণ্যগুলি সহজেই বিক্রি করতে পারেন তবে এটি আপনাকে আরও উৎপাদন করতে উৎসাহিত করবে। আপনি যদি আপনার পণ্য সঠিকভাবে বাজারে বিক্রি করতে না পারেন, তাহলে আপনার ব্যবসা লাভজনক হবে না। সেইজন্য  খামারের অবস্থান নির্ধারণ করার আগে স্থানীয় বাজার সম্পর্কে ধারনা করে নিন।

- দেবাশীষ চক্রবর্তী

Share your comments



Krishi Jagran Bengali Magazine Subscription Subscribe Online

Download Krishi Jagran Mobile App

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.