জৈব উপায়ে কালো চাল বা ব্ল্যাক রাইস চাষ করুন

Thursday, 21 February 2019 05:07 PM

কালো চাল সাদা চালের চেয়ে অনেক বেশি পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যকর । ক্যানসার রোগ প্রতিরোধে কালো চাল অনন্য। এই চালে শর্করার পরিমাণ সাদা চালের চেয়ে কম, আয়রন ও ভিটামিন বি-এর পরিমাণ বেশি। কালো চালে উপস্থিত পুষ্টি উপাদানগুলি হল- ফ্যাট ১.৫ গ্রাম (৩%), কার্বোহাইড্রেট ১১%, আঁশ ৫%, ভিটামিন এ ২%, আয়রণ ৬%। উপকারীতার জন্য পশ্চিমবঙ্গে কালো চালের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।

কালো চাল ক্যানসাররোধী অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে পরিপূর্ণ। অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ফ্ল্যাভিনয়েড যা অ্যানথোসায়ানিন নামে পরিচিত যা কালো চালে খুব বেশি পরিমাণে থাকাতেই চালের রঙ কালো হয়েছে। এই উপাদানটি থাকার কারণেই ক্যানসার, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, স্নায়ূরোগ এমনকি ব্যকটেরিয়া সংক্রমণ প্রতিহত করতে পারে কালো চাল। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, ধমনীতে রক্ত চলাচল যেসব কারণে বাধগ্রস্ত হয়, কালো চালের উপাদান তা হতে দেয় না। ফলে উচ্চ রক্তচাপ হয় না এবং হৃদরোগ তথা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমে যায়।

এরাজ্য থেকে কর্ণাটক ও তামিলনাডু যাচ্ছে কালো চাল। বাংলার কালো চালের ভালো বাজার তৈরি হচ্ছে ইউরোপের দেশে। চাষের এলাকা বাড়াতে কৃষি দপ্তর থেকে বীজ দেওয়া হয়। সঙ্গে প্রযুক্তিও দেওয়া হয়।

শুধুমাত্র আমনের মরশুমেই ব্ল্যাক রাইস চাষ করা যাবে। বোরো মরশুমে চাষ হয় না । কারণ এর ফুল ফোটার সময় যদি তাপমাত্রা বেশি থাকে তাহলে ফুল নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তাই শ্রাবণের মাঝামাঝি ধান লাগানো হয়। ১৩৮-১৪০ দিনের ফসল। চালের তুষ, চাল মিলের ছাই, চিটে গুড়, কেচো সার দিয়ে জৈবসার তৈরি করে তা জমিতে প্রয়োগ করা হয়। মাজরা পোকা ও দানের পাতা মোড়া রোগ দমনে মহুয়া খোল ও নিম খোলের নির্যাস ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন কৃষি দপ্তরের বিষশষজ্ঞরা।

- রুনা নাথ (runa@krishijagran.com)

Share your comments



Krishi Jagran Bengali Magazine Subscription Subscribe Online

Download Krishi Jagran Mobile App

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.