জৈব উপায়ে সবজি চাষ

KJ Staff
KJ Staff

আমাদের চাষ বাসে দু ধরনের সবজির মধ্যে বেশীরভাগটাই বীজতলা করে চারা রোয়া করে আবাদ করা হয়। এছাড়া কুমড়ো জাতীয় সবজি, ভেন্ডি, শাক জাতীয় সবজি ও কিছু সরাসরি বীজ বোনা হয়। বর্তমানে কীটনাশক অধ্যুষিত বিষময় সবজির প্রেক্ষিতে রাসায়নিক ব্যতিরেকে সবজি চাষ আমাদের সুস্থির কষির একমাত্র দিশা। তবে এক্ষেত্রে প্রথমেই বলি জৈব বীজতলার কথা –

জৈব উপায়ে সবজির বীজতলা – উন্নত বীজ ও চারা হল সুস্থ ও সঠিক ফলনের চাবিকাঠি। অপেক্ষাকৃত উঁচু, ভালো জল নিকাশী ব্যবস্থার রোদ হাওয়া যুক্ত স্থানে ভালো করে কুপিয়ে নিতে হবে। বীজতলার মাঝখানটি উঁচু ও ধারগুলো সামান্য ঢালু অনেকটা কচ্ছপের পিঠের মত হবে।

  • বীজতলার মাটি শোধনে রাসায়নিক ব্যবহার না করে সূর্যের সাহায্যে মাটি শোধন করতে মাটি কুপিয়ে মিহি করে ২০০ গেজের স্বচ্ছ পলিথিন দিয়ে পুরো মাটি ঢেকে চারদিকে ভেজা মাটি চাপা দিয়ে হাওয়া ঢোকার পথ বন্ধ করে ১৫ -২০ দিন রাখলে তাপীয় শোষণ দ্বারা মাটি শোধন হবে।
  • এরপর ঢাকা তুলে ৩ মি / ১ মি বীজতলার জন্য ২০ কেজি শুকনো গোবর সার বা ১০ কেজি কেঁচো সারের সঙ্গে ১৫০ গ্রাম ট্রাইকোডার্মা ভিরিডি/ হার্জিয়ানা ও ১৫০ গ্রাম সিউডোমোনাস ফ্লুরোসেন্স সপ্তাহ খানেক আগে মিশিয়ে ঢাকা রেখে পরে বীজতলার মাটিতে মিশিয়ে কুপিয়ে দিতে হবে।
  • এরপর ঐ পরিমান বীজতলার জন্য ২ কেজি নিমখোল বা নিমের কন্সেন্ট্রেটেড দানা ১০০ গ্রাম ও ৫০ গ্রাম হিউমিক অ্যাসিড যুক্ত মাটিতে মিশাবার জৈব উপাদান দিয়ে মাটি মিহি করে বোনার পর উপযুক্ত করতে হবে।
  • জৈব সার ব্যবহার না করতে পারলে মাটিতে প্রয়োগ উপযোগী জৈব কম্পোস্ট সুপারিশ অনুযায়ী ব্যবহার হবে তবে জৈব রোগনাশক ও অন্য উপাদান একই।
  • এসময় পারলে অ্যাজোটোব্যাক্টর / অ্যাজোস্পাইরিলাম সুপারিশ মত ব্যবহার করতে হবে।
  • অসময়ের সবজির ক্ষেত্রে বর্ষার পর তৈরিতে বাঁশের বাখারি দিয়ে স্বচ্ছ পলিথিন ঢাকা দিতে হবে।
  • বীজতলায় সাদামাছি বাহিত ভাইরাস রোগ প্রতিরোধে চারাদিকে বাঁশের কীট প্রতিরোধী মশারির জাল দিয়ে ঘিরে দিলে জলদি টমাটো, লঙ্কা, ক্যাপসিকাম এসবের কুটে ভাইরাস রোগ প্রতিহত হবে।
  • লাইন করে বীজ বুনে চারার ১০ – ১২ দিনে একবার ও ২০ – ২২ দিনে আরেকবার ১০০০০ পি পি এম ক্ষমতার নিমজাত কৃষি বিষ ১ মিলি / লিটার স্প্রে করতে হবে।

বীজ শোধন  - বাচ্চাদের যেমন টীকাকরণ – তেমনই চাষে বীজ শোধন

কপি জাতীয় ও বেগুন, লঙ্কা , টমাটোর ক্ষেত্রে ৪৮ – ৫২ ডিগ্রি সেলসিয়াস গরম জলে (জল গরম করার সময় এক টুকরো মোম ফেলে রাখলে যখন গলবে) ১৫ – ২০ মিনিট ভিজিয়ে ছায়াতে শুকিয়ে নিতে হবে। অন্যান্য সকল বীজ ও আগের সবজি বীজগুলিতেও ৫ গ্রাম ট্রাইকোডার্মা + ৫ গ্রাম সিউডোমোনাস বা ১০ গ্রাম ট্রাইকোডার্মা প্রতি লিটার জলে গুলে বীজ আটঘন্টা ভিজিয়ে ছায়ায় শুকাতে হবে।

- ড: শুভদীপ নাথ,

সহ উদ্যানপালন আধিকারিক, উত্তর ২৪ পরগণা

সবজি, ফুল ও ফলের জৈব চাষ সম্পর্কে আরো জানতে চোখ রাখুন কৃষি জাগরণের পত্রিকা ও পোর্টালে।

- রুনা নাথ (runa@krishijagran.com)

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters