কাঁঠালের রোগ ও তার প্রতিকার

Wednesday, 27 February 2019 01:52 PM

কাঁঠাল ভারতের একটি অন্যতম সুপ্রাচীন ও জনপ্রিয় ফল। এর মধ্যে যথেস্ট পরিমান প্রোটিন, শর্করা, আঁশ ছাড়াও সোডিয়ান ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম ও রাইবোফ্ল্যাভিন আছে। কাঁচা অবস্থায় এটি (এঁচোড়) সবজি হিসেবেও খাওয়া হয়। লাভজনক এই ফল চাষে কাঁঠাল গাছের নানা রোগ হয়। যেমন –

  • ফল ঝড়ে পরা – কাঠালে স্ত্রী ও পুরুষ ফুল একই গাছে হয়, তবে পরাগযোগ না হলে ফল শুকিয়ে ঝড়ে যায়। প্রতিকারে প্ল্যানোফিক্স ২.৫ – ৩ মিলি প্রতি ১০ লিটার জলে গুলে স্প্রে করতে হবে।
  • স্পঞ্জের মত ফল পচা – বোরনের অভাবে কচি কাঠাল ফলগুলি স্পঞ্জের মতো হয়ে পচে যায়। প্রতিকারের জন্য মাঘ থেকে জৈষ্ঠ মাস অবধি প্রতি মাসে একবার প্ল্যানোফিক্স ২ গ্রাম প্রতি লিটার জলে গুলে স্প্রে করলে সুফল পাওয়া যায়।
  • ছাল ফাটা রোগ – আম গাছের মত কাঁঠাল গাছের ছাল ফেটে যায় ও গা দিয়ে আঠা বের হয়। প্রতিকারের জন্য ব্লাইটক্স ১০ গ্রাম প্রতি লিটার জলে গুলে কান্ডের গায়ে লেপে দিয়ে ভাল ফল পাওয়া যায়।
  • ছত্রাকঘটিত মুচি ঝরে পড়া রোগ – এই ছত্রাকঘটিত রোগে (Rhizopus artocarpi) মুচি ছোট অবস্থায় কালো হয়ে পচে গাছ থেকে ঝরে পড়ে। এটি কাঁঠাল গাছের সব থেকে বড় সমস্যা। প্রতিকার – ছত্রাক ঘটিত আক্রমণের জন্য ব্লাইটক্স ৪ গ্রাম প্রতি লিটার জলে গুলে মুচি আসার পূর্বে ও পরে প্রয়োজন ভিত্তিক স্প্রে করতে হবে।

- রুনা নাথ (runa@krishijagran.com)

English Summary: Diseases of Jackfruit and their solutions

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.