প্রধানমন্ত্রী কুসুম যোজনায় ব্যাংক থেকে তহবিল পাওয়ার সমস্যায় সংকটের মুখে কৃষকরা

Friday, 16 April 2021 07:35 PM
Solar pump (Image Credit - Google)

Solar pump (Image Credit - Google)

কৃষকদের বন্ধ্যা জমি এবং আধা-উর্বর জমি থেকে অতিরিক্ত উপার্জনে সহায়তার লক্ষ্যে কেন্দ্রীয় সরকারের পিএম কুসুম (Pradhan Mantri Kisan Urja Suraksha evam Utthaan Mahabhiyan) যোজনায় ব্যাংকগুলি অর্থায়ন করতে অরাজি হওয়ায় কৃষকরা পরেছেন সংকটে। সোলার প্লান্ট স্থাপনের জন্য ডিস্কের সাথে চুক্তি স্বাক্ষরকারী ১৭০ জন কৃষকের মধ্যে মাত্র ১৫ জন প্রকল্পে কাজ শুরু করেছেন, বাকিরা ব্যাংক তহবিল পেতে অক্ষম হওয়ায় বিলম্ব করছেন।

রাজস্থান রিনিউয়েবল এনার্জি কর্পোরেশন লিমিটেডের (Rajasthan Renewable Energy Corporation Ltd) এক প্রবীণ আধিকারিকের মতে, দুটি কারণে প্রকল্পগুলি তহবিলের জন্য ব্যাংকগুলির কার্যক্রমে শিথিলতা দেখা দিয়েছে। প্রথমে তিনি বলেন, সময় মতো বিদ্যুতের জন্য অর্থ প্রদানের ডিসকোমের ভাল ট্র্যাক রেকর্ড নেই, এটি একটি উদ্বেগের বিষয়। দ্বিতীয় কারণ হ'ল, অর্থ পরিশোধ না করার ক্ষেত্রে তারা সমস্যার সংবেদনশীলতার কারণে কৃষকের জমি অধিকৃত করতে পারে না।

কর্মকর্তারা বলেছেন, “জমি একটি ভাল জামানত। তবে কৃষকদের ক্ষেত্রে ডিফল্ট অবস্থায় জমি দখল করা যায় না। প্রকল্পগুলি অর্থায়নের জন্য ব্যাংকগুলি অন্য জামানত চায়, তবে কৃষকরা অন্য সম্পদ রাখেন না বা অন্য সম্পদ জামানত হিসাবে রাখতে তারা অক্ষম। চুক্তি অনুসারে, ডিসকোমগুলি বিদ্যুত কেনে, তবে অন্যান্য প্রকল্পগুলিতে তাদের অর্থ প্রদানের ট্র্যাক রেকর্ড খুব ভালো নয়। সুতরাং ব্যাঙ্কাররা এই প্রকল্পগুলি সম্পর্কে সতর্ক রয়েছেন "।

আরও পড়ুন - পোস্ট ইনফো অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন এবং নিজের অর্থের খোঁজ রাখুন, কীভাবে? জানুন বিস্তারিত

রাজ্য স্তরের ব্যাংকিং কমিটির (SLBC) একজন কর্মকর্তা TOI- কে বলেছেন যে, বোর্ডস অফ ব্যাংকস থেকে এ জাতীয় প্রকল্পগুলির তহবিল দেওয়ার কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই কর্মকর্তা বলেছেন, "আমাদের এই প্রকল্পগুলি ব্যাক করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে তবে বোর্ড বিবেচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না জানালে আমরা এই প্রকল্পগুলিতে লোণ দিতে পারি না"।

প্রধানমন্ত্রী-কুসুম যোজনা মার্চ ২০১৯ সালে চালু হয়েছিল। রাজস্থান ভারতের প্রথম রাজ্য, যা কৃষকদের কাছ থেকে আগ্রহ প্রকাশের জন্য আহ্বান জানায় এবং ২০২০ সালের মধ্যে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে।

তাদের আবেদনের ভিত্তিতে বাছাই করা ৬২৩ জন কৃষকের মধ্যে ২০১ জন সুরক্ষা বাবদ মেগাওয়াট প্রতি পাঁচ লাখ টাকা জমা দিয়েছেন। তবে কেবল ১৭০ জনই ডিসকোমের সাথে চুক্তি করেছে।

রাজস্থান বিদ্যুৎ নিয়ন্ত্রণ কমিশন এই প্রকল্পগুলির জন্য ৩.১৪ পয়সা/ইউনিট বিদ্যুৎ নির্ধারণ করেছে, যা এই প্রকল্পগুলির ক্ষুদ্র আকারের কারণে মূল্য খুব কম বলে ইন্ডাস্ট্রি অনুভব করে। এমনকি বিনিয়োগকারীরা প্রকল্পগুলি স্থাপন করতে কৃষকদের সাথে সহযোগিতা করতে এবং তাদের ভাড়া দিতে পারে।

আরও পড়ুন - e-SANTA App থেকে বাড়বে জেলেদের আয়, মৎস্যজীবীরা জানুন বিস্তারিত

English Summary: Farmers are facing problems of getting funds from banks under the PM Kusum Yojana

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.