পুষ্টিগুণে ভরপুর পেয়ারার স্বাস্থ্য গুণ (Nutritious Guava)

KJ Staff
KJ Staff
Benefits of Guava (Image source - Google)
Benefits of Guava (Image source - Google)

আমরা প্রায় প্রত্যেকেই কম বেশি পেয়ারার গুণ (Benefits of Guava) সম্পর্কে অবহিত৷ তবে ঠিক কি কি পুষ্টিগুণ রয়েছে পেয়ারায়? পেয়ারা না আপেল কোনটি বেশী উপকারী? চলুন জেনে নেওয়া যাক পেয়ারার স্বাস্থ্যগুণ সম্পর্কে।

পেয়ারায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট (Antioxidant), যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে৷ শুধু পেয়ারাই নয়, এই উদ্ভিদের পাতাও কিন্ত ঔষধিগুণে ভরপুর। প্রাকৃতিকভাবে ব্যাথা উপশমে পেয়ারা পাতার জুড়ি মেলা ভার৷ এছাড়া এতে রয়েছে ক্যারোটিনয়েডস, পলিফেনলস্, ফ্ল্যাবোনয়েডস্, ট্যানিন, এমনই বিভিন্ন উপাদান যা বিভিন্ন অসুখ দূর করতে সাহায্য করে৷ শারীরিক সমস্যা দূর করতে কিভাবে সাহায্য করে এটি, রইল সে সব তথ্য৷

পেয়ারায় (Guava) রয়েছে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে৷ শুধু পেয়ারাই নয়, এই উদ্ভিদের পাতাও কিন্ত ঔষধিগুণে ভরপুর। প্রাকৃতিকভাবে ব্যাথা উপশমে পেয়ারা পাতার জুড়ি মেলা ভার৷ এছাড়া এতে রয়েছে ক্যারোটিনয়েডস, পলিফেনলস্, ফ্ল্যাবোনয়েডস্, ট্যানিন, এমনই বিভিন্ন উপাদান যা বিভিন্ন অসুখ দূর করতে সাহায্য করে৷ শারীরিক সমস্যা দূর করতে কিভাবে সাহায্য করে এটি, রইল সে সব তথ্য৷

পেটের সমস্যা দূর করে -  

পেয়ারা খাবারের রুচি আনে। কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা দূরীভূত করে, হজম শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। পেয়ারা একটি ফাইবার জাতীয় ফল আর তাই এটি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।

স্ট্রেস দূর করে -  

পেয়ারা পেশি আর স্নায়ুর কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে। মানসিক চাপ কমায়, কর্মক্ষমতা বাড়ায়। স্ট্রেস দূর করতে দারুণ ভালো কাজ দেয় পেয়ারা।

পেটের সমস্যা দূর করে -  

পেয়ারা খাবারের রুচি আনে। কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা দূরীভূত করে, হজম শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। পেয়ারা একটি ফাইবার জাতীয় ফল আর তাই এটি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।

স্ট্রেস দূর করে -  

পেয়ারা পেশি আর স্নায়ুর কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে। মানসিক চাপ কমায়, কর্মক্ষমতা বাড়ায়। স্ট্রেস দূর করতে দারুণ ভালো কাজ দেয় পেয়ারা।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ -

ডায়াবেটিক রোগীদের অনেক ধরণের ফল খাওয়া নিষেধ হলেও এটি একটি ফল, যেটা শরীরের রক্ত-শর্করার মাত্রাকে স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে। প্রচুর পরিমাণে ফাইবারের উপস্থিতি এবং গ্লাইসেমিক সূচক নিম্নস্তরের হওয়ার ফলে এই ফলটি নিশ্চিন্তে ডায়াবেটিক পেশেন্টরা খেতে পারেন। টাইপ ২ ডায়াবেটিসের উপর পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত পেয়ারা খাওয়ার ফলে রক্তে শর্করার মাত্রার তারতম্য ঘটেছে।

আরও পড়ুন - ফলসা ফল খেলে কোন কোন রোগ নিরাময় হবে? দেখুন ফলসা খাওয়ার উপকারিতা (Benefits Of Eating Phalsa)

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters