Dragon Fruit - কেন খাবেন ড্রাগন ফ্রুট, কি কি উপকার পাবেন? জেনে নিন এর স্বাস্থ্যগুণ

স্বপ্নম সেন
স্বপ্নম সেন
Dragon fruit (Image Credit - Google)
Dragon fruit (Image Credit - Google)

পশ্চিমবঙ্গের কিছু জেলায় এই ফল চাষে চাষিরা বিশেষ মনোযোগী হয়েছে। গুজরাট রাজ্যে প্রথম এই ড্রাগন ফল চাষ সফল হয়। অনেক নার্সারি তেই এখন ড্রাগন ফলের চারা তৈরি হচ্ছে। বীজ থেকে চারা তৈরি করা যায়। কিন্তু সফলতার হার খুব কম হওয়ায় কাটিং থেকে চারা করা ভাল। এছাড়া বীজ থেকে তৈরি চারায় মাতৃ গাছের সমস্ত গুন থাকে না। পশ্চিমবঙ্গের আবহাওয়ায় কাটিং এর চারা থেকে প্রায় ১৪-১৫ মাসের মধ্যে ফল ধরতে শুরু করে। কিন্তু বীজ থেকে তৈরি চারায় ফল ধরতে তিন বছর সময় লাগে।

আজ আমরা জানব, ড্রাগন ফ্রুটের স্বাস্থ্য গুণ সম্পর্কে (Health Benefits) –

১. ড্রাগন ফল অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ হওয়ায় অস্থির ফ্রি র‌্যাডিকাল অণু যা কোষের ক্ষতি করে প্রদাহ বা রোগ সৃষ্টি করতে পারে সেগুলির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারে। অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলি ফ্রি র‌্যাডিকেলগুলিকে নিউট্রাল করে দেয় এবং এভাবে কোষের ক্ষতি এবং প্রদাহ রোধ করে।

গবেষণায় দেখা গেছে যে, নিত্যকার ডায়েটে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার থাকলে সেটা হৃদরোগ, ক্যান্সার, ডায়াবেটিস এবং বাত এর মতো দীর্ঘস্থায়ী রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করতে পারে।

২. এক কাপ (৭গ্রাম) পরিমাণ ড্রাগন ফল সকল ধরনের খাদ্যগুণের একটি দুর্দান্ত উৎস। এর মধ্যকার উচ্চ ফাইবার আপনার দেহের দৈনিক চাহিদা পূরণে সহায়তা করবে। পেটের অস্বস্তি এড়াতে এবং হজম প্রক্রিয়া কে সহজ করতে প্রতিদিন উচ্চ ডায়েটরি ফাইবার খাওয়ার অভ্যাস করুন এবং প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন।

৩. আপনার অন্ত্রে ৪০০ টিরও বেশি প্রজাতির ব্যাকটিরিয়া সহ প্রায় ১০০ ট্রিলিয়ন বিবিধ মাইক্রো অর্গানিজ রয়েছে। অনেক গবেষক বিশ্বাস করেন যে অণুজীবের এই সম্প্রদায়টি আপনার স্বাস্থ্যের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। মানব এবং প্রাণী উভয় সম্প্রদায়ের অ্যাজমা এবং হৃদরোগের মতো ব্যাধিগুলি আপনার অন্ত্রের ভারসাম্যহীনতার জন্য হয়ে থাকে।

ড্রাগন ফলে প্রাক-জৈবিক উপাদান রয়েছে, যেগুলি আপনার অন্ত্রের ভাল ব্যাকটিরিয়ার ভারসাম্যকে উন্নত করতে পারে। প্রিবায়োটিক হলো একটি নির্দিষ্ট ধরণের ফাইবার যা আপনার অন্ত্রে স্বাস্থ্যকর ব্যাকটিরিয়ার পরিমাণ বৃদ্ধি করে। কিছু কিছু ফাইবার আপনার অন্ত্র সরাসরি হজম করতে পারেনা। তবে আপনার পেটের ব্যাকটেরিয়া সেগুলি হজম করতে পারে। তারা বৃদ্ধির জন্য জ্বালানী হিসাবে ফাইবারটি ব্যবহার করে থাকে।

ড্রাগন ফল মূলত দুটি স্বাস্থ্যকর ব্যাকটিরিয়া, ল্যাকটিক অ্যাসিড ব্যাকটিরিয়া এবং বিফিডো ব্যাকটিরিয়া বিস্তারে সহয়তা করে। । নিয়মিত প্রিবায়োটিক গ্রহণ করলে পাচনতন্ত্র ভালো থাকে এবং ডায়রিয়ায় সংক্রমণের ঝুঁকি হ্রাস পায়। কারণ, এটি ভাল ব্যাক্টেরিয়াগুলির বিকাশ ঘটায় এবং খারাপ ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ হ্রাস করে। 

আরও পড়ুন - Pigeon Pea – জেনে নিন অড়হর ডালের পুষ্টিগুণ ও বিশেষ উপকারিতা সম্পর্কে

৪. এক কাপ পরিমাণ ড্রাগন ফল দৈনিক চাহিদার ১৮% ম্যাগনেসিয়াম সরবরাহ করে। গড়ে আপনার দেহে ২৪ গ্রাম বা মোটামুটি এক আউন্স পরিমাণ ম্যাগনেসিয়াম থাকে। এটি আপাতদৃষ্টিতে সামান্য পরিমাণ মনে হলেও এই খনিজ পদার্থটি আপনার প্রতিটি কোষে উপস্থিত এবং আপনার দেহের মধ্যকার ৬০০ টিরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ রাসায়নিক বিক্রিয়ায় অংশ নেয়।

উদাহরণস্বরূপ, এটি খাদ্যকে শক্তিতে রূপান্তর, পেশী সংকোচন, হাড়ের গঠন এবং এমনকি ডিএনএ তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় প্রতিক্রিয়াগুলিতে অংশ নেয়।  কিছু গবেষণা ইঙ্গিত দেয় যে, উচ্চ ম্যাগনেসিয়াম গ্রহণের ফলে হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস পেতে পারে। গবেষণাগুলি এটাও দেখায় যে, পর্যাপ্ত ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার হাড় গঠনে বিশেষ ভূমিকা রাখে।

আরও পড়ুন - নিজের ফুসফুসকে কি করে সুস্থ রাখবেন? মেনে চলুন এই সামান্য কিছু টিপস

Like this article?

Hey! I am স্বপ্নম সেন . Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters