সাথী ফসল হিসাবে পাহাড়ের আদা এবার সমতলে

Wednesday, 24 July 2019 06:19 PM

এতদিন রাজ্যের দার্জিলিং, ক্যালিম্পং এর পাশাপাশি তরাই এর কিছু অঞ্চলে আদার চাষ হতো। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে পরীক্ষা নিরিক্ষার পর এখন সমতলে আদার উদপাদন শুরু হয়েছে। সমতলে আদা ফলিয়ে নজর কেড়েছেন বিধানচন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা। গরুবাথান, বর্ধমান নামক ভারতীয় জাতের আদা ছাড়াও রিও-ডি-জেনেইরো, চীনা, ওয়াইনাদ প্রভৃতি বাইরের দেশের আদার জাতও চাষ করা হচ্ছে।

কৃষি আধিকারিকরা বলেছেন, আদা চাষে পটাশ সার বেশী লাগে। গোবর সার, কম্পোস্ট সার, ছাই, তুষ, পাতা পচা বেশী করে দিতে হবে। হেক্টরে ১০-১৫ টন জৈব সার দেওয়া দরকার। বিঘায় ৪০ কেজি ইউরিয়া, ৮০ কেজি সিঙ্গল সুপার ফসফেট ও ৪০ কেজি পটাশ দিতে হবে। জমি তৈরির সময় মাটিতে ফসফরাস মিশিয়ে দেওয়া দরকার। নাইট্রোজেন ও পটাশ দু-ভাগে ভাগ করে চাপান হিসাবে দিতে হবে, একবার ৪৫ দিন ও একবার ৯০ দিনের মাথায়। সিমেন্টের বস্তাতেও মাটি ভরে আদা চাষ করা যায়। বস্তা পিছু গড়ে ২ কেজি আদা মেলে। ৬-৭ মাসেই ফলন পাওয়া যায়। প্রতি বিঘা চাষে খরচ ২৫-৩০ হাজার টাকা, ৩ টন ফলন মেলে, বিক্রি করে ১ লক্ষ টাকা পাওয়া যায়। প্রতি বিঘায় লাভ ৭০ হাজার টাকা।

English Summary: ginger plantation in plains as companion crop

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.