খারিফ মরসুমে কচু চাষে (Taro Farming) হতে পারে প্রচুর লাভ

Thursday, 25 June 2020 04:53 PM

ভারতে প্রায় বেশিরভাগ রাজ্যেই কচুর দেখা মেলে৷ শুধু সবজি হিসেবেই নয়, অনেকক্ষেত্রে এর গাছ সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির কারণেও অফিসে, বাড়িতে রাখা হয়৷ খাবার উপযোগী কচুর মধ্যে কয়েকটি জাত হল- পঞ্চমুখী কচু, দুধকচু, মুখীকচু, ওলকচু, মানকচু, পানিকচু, শোলাকচু প্রভৃতি। পশ্চিমবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই এর দেখা মেলে৷

কচু রাস্তা, বন জঙ্গলে পরিচর্যা ছাড়াই বেড়ে ওঠে৷ কিন্তু এগুলির মধ্যে বুনো কচুও বিদ্যমান যা খাওয়ার উপযোগী নয়৷ তবে সঠিক পদ্ধতিতে এর চাষ করে বিক্রি করতে পারলে এই কচুই আপনাকে লাভের মুখ দেখাবে৷ প্রজাতিভেদে কচুর মূল, লতি, পাতা ও ডাটা সবকিছুই খাওয়া হয়৷

এই কচুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ বিদ্যমান যা আমাদের দৃষ্টিশক্তি উন্নত করতে সাহায্য করে৷ বিশেষ করে বলা হয়, রাতকানা রোগীদের জন্য কচু অত্যন্ত উপকারী৷ তবে অনেকের কচুতে অ্যালার্জির ধাত থাকে৷ যাদের কচু খেলে সমস্যা হয়, তাদের এটি এড়িয়ে যাওয়ায় ভালো৷

জলবায়ু-

এই কচু চাষের জন্য আর্দ্র জলবায়ু হলে ভালো হয়৷ গ্রীষ্ম এবং বর্ষায় সহজেই এর ভালো ফলন পেতে পারেন৷ উত্তর ভারতের জলবায়ুকে কচু চাষের জন্য আদর্শ মনে করা হয়৷

মাটি এবং বপনের সময়-

কচু চাষের জন্য বেলে-দোআঁশ বা এঁটেল মাটি সবথেকে ভালো৷ তবে চাষের আগে মাটি প্রথমে তৈরি করে নিতে হবে৷ দুই থেকে তিন বার মাটি কর্ষণ করতে হবে৷ কচু চাষের আগে গোবর সার প্রয়োগ করে মাটিকে প্রস্তুত করে নিতে হবে৷ বপনের ১৫-২০ দিন আগে এই সার মাটিতে মিশিয়ে নিন৷ খারিফের মরসুমে, জুন থেকে জুলাইয়ের মাঝামাঝি এর চাষ করতে হবে৷ 

সেচকার্য-

গরমের সময় ৪ দিন অন্তর অন্তর সেচকার্য করা যেতে পারে কচুর ক্ষেতে৷ আবার বর্ষাকালে কচু চাষের জন্য সেচের প্রয়োজন হয় না৷ কচু চাষের জন্য খুব বেশি পরিচর্যার বা পরিশ্রমের প্রয়োজন হয় না৷

কচু সংগ্রহ-

এর পাতা একটু হলুদ হলুদ হয়ে এলে এটি সংগ্রহ করা যেতে পারে৷ এটি সংগ্রহের পর তা শুকনো স্থানে রাখা যেতে পারে৷ রোপনের ২ থেকে ৭ মাস পর্যন্ত এর লতি সংগ্রহ করতে পারেন৷

এভাবে খুব কম খরচে কয়েকটি নিয়ম মেনে এর চাষ করতে পারলে মাসের শেষ এই কচুই আপনাকে উপার্জনের পথ দেখাবে৷

 

আরও পড়ুন- ব্রাহ্মী চাষে (Waterhyssop Farming) এই কৃষকের সাফল্য উৎসাহিত করবে আপনাকেও

English Summary: Taro farming in kharif season will be profitable for you

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.