সেন্টার ফর সায়েন্স অ্যান্ড এএনভায়রনমেন্ট (সিএসই) কোলিস্টিন-এ নিষেধাজ্ঞাকে স্বাগত জানিয়েছে

Monday, 05 August 2019 05:48 PM

খাদ্য উৎপাদনকারী প্রাণীর ক্ষেত্রে কোলস্টিন ব্যবহার নিষিদ্ধ করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সাম্প্রতিক পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে, সেন্টার ফর সায়েন্স এনভায়রনমেন্ট (সিএসই)। গত ১৯ জুলাই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রক বিজ্ঞপ্তি দিয়ে কোলস্টিনের বিক্রি, উৎপাদন ও বণ্টন এবং খাদ্য উৎপাদনকারী প্রাণী, পোলট্রি, অ্যাকুয়া ফার্মিং এবং অ্যানিম্যাল ফিড সাপ্লিমেন্টের ক্ষেত্রে তার নিষিদ্ধকরণের কথা জানায়। এই পদক্ষেপ প্রাণীর মধ্যে অ্যান্টিবায়োটিক কোলস্টিনের অপব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করতে এবং অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল প্রতিরোধ ক্ষমতা ধারণ করতে সাহায্য করবে বলে মনে করা হচ্ছে ।

সিএসই-র ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল চন্দ্র ভূষণ বলেন, "খাদ্যউৎপাদনকারী প্রাণীদের মধ্যে কোলস্টিন ব্যবহার নিষিদ্ধ করতে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পদক্ষেপকে আমরা স্বাগত জানাই । এটি মানুষের জন্য অ্যান্টিবায়োটিক সংরক্ষণ করতে এবং মারাত্মক অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী সংক্রমণ থেকে জীবন বাঁচাতে সাহায্য করবে। এটি অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধের লড়াইয়ে অনেক এগিয়ে যাবে "।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) কোলেস্টিন-কে মানুষের জন্য ' সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার গুরুতর গুরুত্বপূর্ণ অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল ' হিসেবে বিবেচনা করেছে -

অ্যান্টিবায়োটিকের প্রতিরোধ একটি বিশ্বব্যাপী জনস্বাস্থ্য সঙ্কট, যা ভারতের উপর ব্যাপকভাবে প্রভাব ফেলে বলে বিশ্বাস করা হয়। অ্যান্টিবায়োটিক তৈরিতে ব্যবহৃত হয় ব্যাকটেরিয়া, তাই অত্যধিক পরিমাণে ব্যবহারের ফলে ব্যাকটেরিয়া অ্যান্টিবায়োটিকের প্রভাব সহ্য করে নিতে সক্ষম হচ্ছে, ফলে অ্যান্টিবায়োটিক অকার্যকর হয়ে পড়ছে। ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ হলে চিকিত্সা করা তাই এখন কঠিন। যেহেতু সামগ্রিক উৎপাদিত অ্যান্টিবায়োটিকের একটি বিশাল অংশ প্রাণীদের লালন-পালনে খাদ্যের জন্য ব্যবহৃত হয়, তাই এই ধরনের অপব্যবহার অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধের অন্যতম প্রধান কারণ । 

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, খাদ্য উৎপাদনকারী প্রাণীর ক্ষেত্রে কোলস্টিন ব্যবহার মানুষের কাছে ঝুঁকিপূর্ণ এবং কেন্দ্রীয় সরকার এটিতে সম্মত যে, জনস্বার্থের ক্ষেত্রে এই ধরনের নিষেধাজ্ঞা জরুরি ও সমীচীন।

গত কয়েক বছর ধরে সিএসই ধারাবাহিকভাবে প্রাণী খাদ্য খাতে অ্যান্টিবায়োটিক অপব্যবহার এবং একটি বৃদ্ধি প্রবর্তক খাদ্য সম্পূরক হিসাবে কোলস্টিন এর সহজ প্রাপ্যতা বিষয় তুলে ধরেছে। সিএসই গবেষকরা মনে করেন, কার্যকর প্রয়োগের জন্য রাজ্যগুলিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। তাঁরা আরও পরামর্শ দেন, ফুড সেফটি অ্যান্ড স্ট্যান্ডার্ডস অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার অ্যান্টিবায়োটিক তলানিতেই এই উন্নয়নের প্রতিফলন ঘটাতে হবে ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশ -

স্বাস্থ্য মন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছে যে, ওষুধের লেবেলে ধারকের সুত্র উল্লেখ করতে হবে এবং এই শব্দের উল্লেখ করা হবে যে, পশু, হাঁস, জলজ প্রাণীর ক্ষেত্রে এবং পশুর খাদ্যে এটি ব্যবহার করা যাবে না।

মন্ত্রকের এক আধিকারিকের মতে, ব্যাকটেরিয়ার কারণে সৃষ্ট সংক্রমণে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য শেষ পর্যায় হিসেবে অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করা হচ্ছে ।

"কোলিস্টিন অ্যান্টিবায়োটিকটি পশুদের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়। কিন্তু ড্রাগটি পোল্ট্রি ফার্মে বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে অত্যন্ত পরিমাণে অপব্যবহৃত হয়। ভারতে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধের অন্যতম কারণ পোল্ট্রি ফার্মে অবাঞ্ছিত কোলস্টিনের ব্যবহার।

স্বপ্নম সেন (swapnam@krishijagran.com)



Krishi Jagran Bengali Magazine Subscription Subscribe Online

Download Krishi Jagran Mobile App

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.