National Science Day 2022:এই পাঁচজন ভারতের মহিলা বিজ্ঞানী, বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে তাদের অবদান জানুন

 রুপালী দাস
রুপালী দাস

২৮ ফেব্রুয়ারি দেশের জন্য একটি বিশেষ দিন। প্রতি বছর এই দিনটি জাতীয় বিজ্ঞান দিবস হিসেবে পালিত হয়।২৮ ফেব্রুয়ারি বিজ্ঞান দিবস  সিভি রমনের সাথে সম্পর্কিত। শুধু ভারতেই নয়, বিশ্বের বিখ্যাত বিজ্ঞানী স্যার সিভি রমন ১৯২৮ সালে তাঁর রামন প্রভাব আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করেছিলেন। তাঁর আবিষ্কার ১৯৩০ সালে নোবেল পুরস্কারে ভূষিত হয়। বিশ্বের অন্যতম সেরা বিজ্ঞানী সিভি রমনের সম্মানে এবং স্মরণে জাতীয় বিজ্ঞান দিবস পালিত হয়। এমনকি স্যার সিভি রমনের পরেও, ভারতে অনেক প্রতিশ্রুতিশীল বিজ্ঞানী ছিলেন, যারা বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে অবদান রেখেছিলেন। এ অবদানে পিছিয়ে নেই নারীরাও। আসুন জেনে নেই ভারতের বিশিষ্ট নারী বিজ্ঞানীদের অবদান সম্পর্কে। 

ভারতীয় মহিলা বিজ্ঞানীদের নাম 

আনন্দীবাই গোপালরাও যোশী

ভারতের প্রথম মহিলা চিকিৎসকের নাম ছিল আনন্দীবাই গোপালরাও। আনন্দীবাই ১৮৬৫ সালের ৩১ মার্চ পুনেতে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি অল্প বয়সে বিয়ে করেন এবং মাত্র ১৪ বছর বয়সে মা হন। পরে ওষুধের অভাবে তাদের নবজাতক ছেলের মৃত্যু হয়।এরপর আনন্দীবাই ওষুধ নিয়ে গবেষণা শুরু করেন। তার স্বামীও তাকে এই পদক্ষেপে সমর্থন করেছিলেন এবং তাকে বিদেশে ডাক্তারি পড়তে অনুপ্রাণিত করেছিলেন। আনন্দীবাই পেনসিলভেনিয়ার মহিলা মেডিকেল কলেজে পড়াশোনা করেছেন।

আরও পড়ুনঃ National Science Day 2022: আজ জাতীয় বিজ্ঞান দিবস, কেন পালিত হয় জানেন ? জানুন এর গৌরবময় ইতিহাস

ডাঃ. জানকী আম্মাল

জানকী আম্মাল ১৮৯৭ সালের ৪ নভেম্বর কেরালার তেলিচেরিতে (বর্তমানে থ্যালাসেরিতে) মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। জানকীর বাবা ছিলেন মাদ্রাজ রাজ্যের একজন ডেপুটি জজ। ডঃ জানকী ছিলেন দেশের প্রথম মহিলা বিজ্ঞানী যিনি পদ্মশ্রী পুরস্কার পান। তিনি বোটানিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

কমলা সোহনি

১৪ সেপ্টেম্বর ১৯১২ সালে ইন্দোরে জন্মগ্রহণ করেন। কমলা সোহনি ছিলেন অধ্যাপক সিভি রমনের প্রথম মহিলা শিষ্য। কমলা সোহনী দেশের প্রথম নারী বিজ্ঞানী যিনি পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন। কমলা সোহনীই উদ্ভিদের প্রতিটি টিস্যুতে 'সাইটোক্রোম সি' নামে একটি এনজাইম আবিষ্কার করেছিলেন।

বিভা চৌধুরী

বিভা চৌধুরী ১৯১৩ সালে কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনিই প্রথম মহিলা যিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিদ্যায় এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর হোমি জাহাঙ্গীর ভাবা ও বিক্রম সারাভাইয়ের সঙ্গে কাজ করেন। দেবেন্দ্র মোহন বসুর সাথে বিভা চৌধুরী বোসন কণা আবিষ্কার করেন।

আরও পড়ুনঃ International mother language day 2022: আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি,আমি ভুলতে পারি না

অসীমা চ্যাটার্জি

২৩ সেপ্টেম্বর ১৯১৭ সালে কলকাতা, বাংলায় একটি মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা একজন মেডিসিন ডাক্তার ছিলেন। অসীমা কলকাতার স্কটিশ চার্চ কলেজ থেকে রসায়নে স্নাতক সম্পন্ন করেন। ভারতীয় জৈব রসায়নবিদ অসীমা চ্যাটার্জি জৈব রসায়ন এবং ওষুধের ক্ষেত্রে বড় অবদান রেখেছিলেন। অসিমা মৃগীরোগের খিঁচুনি এবং অ্যান্টি-ম্যালেরিয়াল ওষুধ তৈরি করেছিলেন।

Published On: 28 February 2022, 05:09 PM English Summary: National Science Day 2022: These five Indian women scientists, know their contribution in the field of science

Like this article?

Hey! I am রুপালী দাস. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters