লকডাউনে মাত্র ৪৫ মিনিটেই ঋণ দেবে এসবিআই, কীভাবে আবেদন করবেন দেখুন

KJ Staff
KJ Staff

করোনার চেন ভাঙতে দেশজুড়ে চলছে লকডাউন৷ স্তব্ধ দেশ, দৈনন্দিন জীবনযাত্রাতেও হয়েছে ছন্দপতন৷ সঙ্কটের মুখে দেশের আর্থিক ব্যবস্থা৷ আর এরই মধ্যে সরকার নানাবিধ প্রকল্পের সূচনা করে জনসাধারণের সমস্যা সুরাহার চেষ্টায়৷ লকডাউনে কাজকর্মে ব্যাঘাত ঘটায় অনেকেই অর্থনৈতিক সঙ্কটে৷ এমতাবস্থায় হঠাৎ করে অর্থের প্রয়োজন হলে সাধারণ মানুষ যাতে অথৈ জলে না পড়ে যায়, তার জন্য আপৎকালীন বা জরুরি সময়ভিত্তিক ঋণ প্রদানের ব্যবস্থা করেছে এসবিআই৷

এই এমারজেন্সি লোন বা আপৎকালীন ঋণ গ্রহণের জন্য ব্যক্তিকে ব্যাঙ্কে যাওয়ার প্রয়োজন নেই৷ বাড়িতে বসেই পেয়ে যাবেন এই লোন৷ তাও আবার বেশিদিন অপেক্ষা করতে হবে না৷ মাত্র ৪৫ মিনিটেই পেয়ে যাবেন এই এমারজেন্সি লোন৷ লকডডাউন পিরিয়ডে এমনই সুবিধা প্রদান করছে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া৷ 

যেহেতু লকডাউনে জনসাধারণের দৈনন্দিন জীবনে ব্যাঘাত ঘটেছে, বন্ধ হয়ে গিয়েছে বহু কাজ, সঙ্গে রয়েছে আর্থিক সঙ্কট, তাই এসব মাথায় রেখেই এসবিআই ঠিক করেছে এই লোন যারা গ্রহণ করবে তাদের ৬ মাস পর্যন্ত কোনও ইএমআই দিতে হবে না৷ অর্থাৎ চলতি মাসে কেউ লোন নিলে তাকে আগামী ৬ মাস কোনও ইএমআই দিতে হবে না, তবে তারপর থেকে শুরু হবে ইএমআই৷ এই লোন নিতে হলে যে কোনও দিন আবেদন করা যাবে৷ গ্রাহকদের জন্য ১০.৫০ শতাংশ হারে সুদ রাখা হয়েছে যা তুলনামূলকভাবে সস্তা৷ তবে এই সমগ্র সুবিধা পাবেন শুধুমাত্র এই ব্যাঙ্কের গ্রাহকেরাই৷

লোনের প্রকারভেদ- বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত এই লোন৷ তার ভিত্তিতে রয়েছে টাকার প্রকারভেদও৷ একনজরে দেখে নেওয়া যাক সেই ভাগগুলি৷

পার্সোনাল লোন- ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত

পেনশন লোন- আড়াই লক্ষ টাকা পর্যন্ত

সার্ভিস ক্লাস- পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত

আবেদন জানানোর পদ্ধতি- এই লোন পেতে হলে কয়েকটি সহজ পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে৷ এসবিআই ব্যাঙ্কের গ্রাহককে তার রেজিস্টার্ড নম্বর থেকে PAPL<অ্যাকাউন্ট নম্বরের শেষ চারটি সংখ্যা> লিখে ৫৬৭৬৭৬ নম্বরে পাঠিয়ে দিতে হবে৷ ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে আপনাকে ম্যাসেজ পাঠিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে যে আপনি এই লোন পাওয়ার জন্য যোগ্য কিনা৷ যারা লোন পাওয়ার যোগ্য তাদের এসবিআই অ্যাপে Avail Now-তে ক্লিক করতে হবে৷ এবার লোনের সময় এবং টাকার পরিমাণ নির্বাচন করতে হবে৷ এবার আপনার রেজিস্টার্ড নম্বরে ওটিপি আসবে, সেই ওটিপি নির্দিষ্ট স্থানে লিখতে হবে, তারপরেই আপনার লোনের টাকা আপনি পেয়ে যাবেন৷

প্রসঙ্গত, লকডাউন পিরিয়ডে এসবিআই-এর এমন বহু সুবিধা গ্রহণ করেই লোন নেওয়া যেতে পারে৷ কৃষকদের জন্যও রয়েছে এগ্রি গোল্ড লোন স্কিম৷ লকডাউনে কৃষিকাজে ছাড় দেওয়া হলেও অনেকক্ষেত্রে আটকে রয়েছে কৃষক-ব্যবসায়ীদের পেমেন্ট৷ যার প্রভাব ঘুরেফিরে পড়ছে কৃষিকাজের ওপরেই৷ এমতাবস্থায় এসবিআই এগ্রি গোল্ড লোন-এর মাধ্যমে কৃষকেরা তাদের কাছে মজুত থাকা সোনা দিয়ে তার ওপর লোন নিতে পারে৷ যে কৃষক লোন নিতে চান তার নামে চাষের জমি থাকতে হবে, যার প্রমাণপত্রের একটি কপি ব্যাঙ্কে জমা করতে হবে৷ এই স্কিমের সুবিধা শুধুমাত্র কৃষকদের দিতেই এই ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ তবে যে কৃষকের নামে চাষের জমি নেই , কিন্তু তার নামে ট্রাক্টর রয়েছে, সেক্ষেত্রেও ওই কৃষক সোনার গয়না জমা করে এই লোন নিতে পারবেন৷ এতে বার্ষিক ৯.৯৫ শতাংশ সুদের হার ধার্য করা হয়েছে৷ যে কোনও গ্রামীণ শাখা থেকে এই লোন নিতে পারবেন কৃষকেরা৷

বর্ষা চ্যাটার্জি

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters