তফসিলি জাতির মাছ চাষীদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে কোচবিহারে ICAR-সেন্ট্রাল ইনস্টিটিউট অফ ফিশারিজ এডুকেশন দ্বারা আয়োজিত হল প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠান

 রুপালী দাস
রুপালী দাস
তফসিলি জাতির মাছ চাষীদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে কোচবিহারে ICAR-সেন্ট্রাল ইনস্টিটিউট অফ ফিশারিজ এডুকেশন দ্বারা আয়োজিত হল প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠান

বর্তমানে কৃষির সঙ্গে জলজ চাষের দিকেও বিশেষ নজর দেওয়া হচ্ছে। চলতি বছরের যে বাজেট পেশ করা হয়েছে সেখানে কৃষির সঙ্গে পশুপালন এবং জলজ চাষে কৃষকদের আগ্রহ তৈরির ক্ষেত্রে বিশেষ পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। ক্রমবর্ধমান মাছের চাহিদা মেটাতে, অব্যবহৃত সম্পদ ব্যবহার করার জন্য জলজ চাষই একমাত্র বিকল্প। ভারত, জলজ কৃষি খাদ্য উৎপাদনের একটি গুরুত্বপূর্ণ খাত। তবে জলজ চাষের উপর মাছ চাষীদের বৈজ্ঞানিক জ্ঞান এবং দক্ষতার অভাবের কারণে, কোচবিহার জেলা মাছ উৎপাদনে পিছিয়ে রয়েছে।

 সম্প্রতি কোচবিহারের ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে ICAR-এর কলকাতা কেন্দ্র দ্বারা জিরানপুর ফার্মার্স প্রডিউসার কোম্পানি লিমিটেডের সহযোগিতায়  25-26 ফেব্রুয়ারি কোচবিহারের জিরানপুরে অ্যাকুয়াকালচার টেকনোলজিস অ্যাজ লাইভলিহুড অপশনস-এর ওপর দুই দিনের প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছিল।

শ্রী বিমান চন্দ্র দেব, কর্মধাখ্যা, কোচবিহার-১ পঞ্চায়েত সমিতি প্রধান অতিথি হিসাবে এই অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন এবং অংশগ্রহণকারী কৃষকদের প্রশিক্ষণের পূর্ণ ব্যবহার করার এবং উত্পাদনশীলতা বাড়াতে এবং তাদের জীবিকা উন্নত করার জন্য বৈজ্ঞানিক মাছ চাষের অনুশীলনগুলি গ্রহণ করার আহ্বান জানান।

ডক্টর গৌরাঙ্গ বিশ্বাস, সিনিয়র সায়েন্টিস্ট এবং প্রশিক্ষণ সমন্বয়কারী, ICAR-CIFE, কলকাতা কেন্দ্র মাছ চাষ, মাছের স্বাস্থ্য এবং রোগ ব্যবস্থাপনার আধুনিক ও উদ্ভাবনী পদ্ধতির উপর রিসোর্স পারসন হিসেবে বিভিন্ন ক্লাস প্রদান করেন। তিনি উচ্চ মূল্যের মাছের প্রজাতির ব্যবহার এবং বিদ্যমান কৃষি ব্যবস্থা থেকে আয় বাড়ানোর জন্য জলজ চাষে প্ল্যাঙ্কটন এবং পেরিফাইটনের মতো প্রাকৃতিক মাছের খাদ্য আইটেম ব্যবহারের পরামর্শ দেন।

ডাঃ দিলীপ কুমার সিং, (বিজ্ঞানী, আইসিএআর-সিআইএফই) প্রধানত ফিড খরচ কমাতে স্থানীয়ভাবে উপলব্ধ সস্তা ফিড উপাদান ব্যবহার করে খামারে তৈরি অ্যাকুয়াফিডের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করেন । তিনি ব্যবহারিকভাবে মাছের খাদ্যের প্রস্তুতি এবং জলের গুণমানের পরামিতিগুলির বিশ্লেষণ প্রদর্শন করেন এবং কোচবিহারের অম্লীয় মাটি এবং জলকে পুনরুদ্ধার করতে কৃষি চুন প্রয়োগের সুপারিশ করেন।

শ্রী পরেশ বিশ্বাস এবং শ্রী দেবাশীষ দাস (জেলা মৎস্য আধিকারিক) কোচবিহার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবং পশ্চিমবঙ্গ মৎস্য বিভাগের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প সম্পর্কে অবহিত করেন ৷ তারা ব্যক্ত করেন যে এই প্রশিক্ষণটি মৎস্য চাষীদেরকে ব্যাপকভাবে উপকৃত করবে যাদের বৈজ্ঞানিক মাছ চাষ সম্পর্কে জ্ঞান নেই তাদের জীবিকা উন্নত করতে সাহায্য করবে।

মোট 100 জন তফসিলি জাতির মাছ চাষি সক্রিয়ভাবে এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন। মাছ চাষের জন্য ফিশ ফিড, চুন, কাস্ট নেট, অ্যালুমিনিয়াম হুন্ডি, সিআইএফই উদ্ভাবিত জল পরীক্ষার কিট সম্পর্কে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পেয়েছেন।  কৃষকরা এই অনুষ্ঠান থেকে দক্ষতা এবং আধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কে অবহিত হয়েছেন যা রাজ্যের মাছের উৎপাদনের উন্নতিতে সহায়তা করবে।

Published On: 28 February 2022, 03:26 PM English Summary: Training program organized by ICAR-Central Institute of Fisheries Education in Kochbihar for empowerment of Scheduled Caste Fish Farmers

Like this article?

Hey! I am রুপালী দাস. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters