Indian Pearl Culture: ভারতীয় মুক্ত চাষের বিশেষত্ব ও সাফল্য

রায়না ঘোষ
রায়না ঘোষ
Pearl farming (image credit- Google)
Pearl farming (image credit- Google)

অশোক মানওয়ানি এবং তার স্ত্রী মিসেস কুলানজান দুবে মানওয়ানি, ফার্ম ইন্ডিয়ান পার্ল কালচার-র প্রতিষ্ঠাতা | তারা দু'জনেই 15 বছর ধরে মুক্তো চাষে ব্যস্ত। তারা একমাত্র কৃষক (Pearl farmer)যারা থান (মহারাষ্ট্র), ভরচ (গুজরাট), ব্যাঙ্গালোর (কর্ণাটক), বেগুসরাই (বিহার), চিত্রকুট (মধ্য প্রদেশ), এলাহাবাদ (উত্তরপ্রদেশ), এবং রায়পুর (ছত্তিশগড়) এইসব রাজ্যের মুক্ত-র ডিজাইন করেছেন ও রপ্তানি করেছেন |

সাধারণত তারা মুক্ত চাষ (Peral farming) পদ্ধতির কৌশলটি সহজ ও সাধারণ করে তুলেছেন যাতে কৃষকরা সহজেই এটিকে গ্রহণ করতে পারে এবং তাদের জীবিকা নির্বাহ করতে পারেন। মুক্ত চাষের সাথে মাছ চাষ করলে ঝিনুকের উৎপাদন বাড়ে।

আমরা সকলেই জানি যে মুক্তোগুলি সমুদ্রের জলে জন্মায় | তবে প্রতিটি গ্রামে নদী, পুকুর ইত্যাদি রয়েছে যেখানে আমরা ঝিনুকগুলি পেয়ে থাকি যার সাহায্যে কৃষকবন্ধুরা মুক্তার চাষ করতে পারে বা মৃত প্রাণী থেকে হস্তশিল্প তৈরি করতে পারে | এবং কেবল চাষের জন্যই নয় নতুন শিল্প উদ্ভাবন  করতে পারেন যা গ্রামীণ অর্থনীতিতে বিকাশ ঘটাতে পারে |

আরও পড়ুন -Tinda Farming: জেনে নিন টিন্ডা চাষ পদ্ধতি

গ্রামাঞ্চলের সবচেয়ে বেশি লাভজনক আয় হলো ১ টি  ঝিনুক দিনে ৪০ লিটার জল ফিল্টার করে যার অর্থ জল স্বয়ংক্রিয়ভাবে পরিষ্কার হয়ে যাবে এবং আমাদের পরিবেশও নিরাপদ থাকবে। তবে আমাদের কৃষকবন্ধুদের কাছে যথাযথ অভিজ্ঞতা না থাকায় তারা ঝিনুক কে সঠিকভাবে লাজে লাগাতে পারেনা |

গোলাকৃতি আকারের পরিবর্তে তারা বিভিন্ন ডিজাইনের মুক্ত চাষ করছেন কারণ গোলাকৃতি মুক্ত  উৎপাদন করতে বেশি সময় লাগে | এবং এই প্রক্রিয়া খুব  জটিল | তার পরিবর্তে  গণেশ, লক্ষ্মী, হনুমান, হার্ট, ক্রস ইত্যাদি নকশা সহজে বানানো যায় | তারা গুজরাট এবং বিহারে কোথাও কোনও প্রশিক্ষণ ছাড়াই নিজেরাই ঝিনুকের প্রজনন চেষ্টা করেছেন এবং সাফল্য পেয়েছেন |

মুক্ত  চাষে  অভিনব কাজ করার জন্য তারা পুরষ্কার পেয়েছেন | এমনকি তারা জাতীয় পুরষ্কারও পেয়েছেন |ভুবনেশ্বর ২০১১-তে সেন্ট্রাল ইনস্টিটিউট অফ ফ্রেশ ওয়াটার অ্যাকুয়াকালচারের উদ্ভাবনী পুরষ্কার। ২০১১ সালে জবালপুরে আইসিএআর (ICAR ) জাতীয় কৃষকের পুরষ্কার |মুম্বইয়ের সেন্ট্রাল ইনস্টিটিউট অফ ফিশারি এডুকেশন ২০১৩ সালের সেরা অভিনব কৃষক। সেরা উদ্ভাবনী তাজা জল মুক্তো সংস্কৃতি কৃষক পুরষ্কার BIOVED ২০১৫ |

ঝিনুক ব্যাবহারে অত্যাধুনিক শিল্প:

শুধু পুরস্কার নয়, তাদের  কৃষকদের মুক্তা সংস্কৃতি উৎপাদন (চাষ) সম্পর্কে উদ্ভাবনের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য তাদের রিসোর্স ব্যক্তি হিসাবে কৃষি বিজ্ঞান কেন্দ্রগুলিতে আমন্ত্রণ করা হয়েছিল |

কোনও সরকারি তহবিল / সহায়তা ছাড়াই প্রদর্শনীগুলিতে এবং বিভিন্ন জায়গায় ৩০ টি শহরের মুক্ত ডিজাইন সংস্কৃতি সম্পর্কে সচেতনতা। ঝিনুক ওপেনার এবং কাঠের ঝিনুকের মতো সাধারণ সরঞ্জামগুলি বানানোর পরিকল্পনা | আমরা বিদেশ থেকে আমদানি না করে আমাদের দেশে মানসম্পন্ন পুঁতি / নিউক্লিয়াস বিকাশ শুরু করি। প্রদীপ, ধূপদানি, মোবাইল স্ট্যান্ডের মতো পরিবেশ বান্ধব চকচকে হস্তশিল্প তৈরি করতে মৃত ঝিনুকের ব্যবহার করেছেন তারা যা তাকে লাগানোর মতো | ইন্টিগ্রেটেড মুক্তো চাষের বিকাশ ঘটিয়েছেন | ভারতে ৭টি মুক্ত প্রজেক্টের ওপর কাজ করেছেন |

তারা কৃষকদের জন্য সহজ উপায়ে মুক্তো সংস্কৃতি শুরু করার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তারা বিভিন্ন কৌশল ব্যবহার করেছেন, বিভিন্ন উপায়েও চেষ্টা করেছেন এবং অনেকসময় ব্যার্থও হয়েছেন | কিন্তু এখনও কোনও সরকারী সহায়তা ছাড়াই কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। কৃষকদের মুক্ত চাষে সাবলম্বী করে তোলাই তাদের প্রধান উদ্দেশ্য |

মুক্ত চাষে আগ্রহী ব্যক্তিরা প্রশিক্ষণ নেওয়ার জন্য তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন |

ফোন: ০৯৮৬০৬৬১১৭৪ এবং ০৯২৭১২৮২৫৬১

মেইল আইডি : indianpearlculture@yahoo.com

আরও পড়ুন - Ginger Farming: আদা চাষে লাভ পেতে চাষ করুন এই পদ্ধতিতে

Like this article?

Hey! I am রায়না ঘোষ . Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters