গ্রামীণ বেকার যুবকরা চাষকেন্দ্রিক ব্যবসা রূপে হাঁস পালনে আয় করুন অতিরিক্ত (Duck Faming)

Friday, 15 January 2021 10:57 AM
Duck Rearing (Image Credit - Google)

Duck Rearing (Image Credit - Google)

অন্যান্য গার্হস্থ্য পোল্ট্রি প্রজাতির মত, হাঁসের অনেক প্রজাতি রয়েছে। কিছু হাঁস মাংস উৎপাদনের জন্য জনপ্রিয়, কিছু ডিম উৎপাদনের জন্য বিখ্যাত, কিছু প্রদর্শনের উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হয়। এমনকি উভয় উদ্দেশ্যর জন্য ভাল কিছু হাঁসের প্রজাতি পাওয়া যায়। এদেরকে দ্বৈত হাঁসের প্রজাতি রূপে চিহ্নিত করা হয়।

ভারতে অনেকেই হাঁস পালন করেন। আমাদের দেশে হাঁস চাষকেন্দ্রিক ব্যবসার সুবিশাল সম্ভাবনা রয়েছে। পূর্বে এটি বেশীরভাগ বাড়িতে ডিমের জন্য লালন করা হত, তবে এখন এটি কর্মসংস্থানেরও মাধ্যম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

মুরগীর (Poultry Farming) চেয়ে হাঁসের কম রোগ হয়। তবে সাধারণত হাঁসের রোগের জীবাণু সংক্রামক। সংক্রামিত হাঁস থেকে অপর হাঁসেরও সংক্রমণ ঘটে। সুতরাং, হাঁসপালনে উপযুক্ত রোগ প্রতিরোধ পদ্ধতি দক্ষতা এবং সতর্কতার সাথে অবলম্বন করতে হবে, যাতে করে হাঁস স্বাস্থ্যকর থাকে এবং তার থেকে সর্বোত্তম উৎপাদন নিশ্চিত হয়। প্লেগ, ভাইরাস, হেপাটাইটিস ইত্যাদি প্রধান ক্ষতিকারক হাঁস রোগ। রোগ প্রতিরোধের জন্য সঠিক সময়ে টীকা প্রদান জরুরি।

রোগের লক্ষণ (Symptoms of diseases) -

  • খাবার খাওয়া বন্ধ করে দিতে পারে।

  • ঘন ঘন জল খাওয়া।

  • ঠোঁটের রঙের পরিবর্তন হতে পারে।

  • হাঁসের পালক অবিন্যস্ত হয়ে যায়।

  • পাখনা বেশী ঝুলে যেতে পারে।

আরও পড়ুন - মৎস্য চাষে লাভের জন্য মাছের বিভিন্ন রোগের লক্ষণ ও তা নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কে চাষিভাইদের অবগতকরণ (Types & Symptoms Of Fish Diseases)

হাঁস পালনের উপকারিতা -

  • হাঁসটি যদি উন্নত জাতের হয় তবে, এটি এক বছরে ৩০০ টিরও বেশি ডিম দিতে পারে। এর ডিমগুলির ওজন প্রায় ৬৫-৭০ গ্রাম।

  • আর্দ্র জমিতে মুরগী পালন না করা গেলেও হাঁস পালনের জন্য তা আদর্শ।

  • হাঁস প্রতি বছর বেশী ডিম দেয় এবং মুরগীর ডিমের চেয়ে তার মূল্য বেশী।

  • হাঁসের আয়ু দীর্ঘ হয় এবং ডিমের উত্পাদন ক্ষমতাও দীর্ঘদিন থাকে।

  • সকালের আগে হাঁসরা ৯৬ শতাংশ ডিম পাড়ে।

  • ভাল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকে।

  • এই প্রাণী জলাভূমির উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং হাঁস-কাম-মাছ চাষ, হাঁস-চাল চাষের জন্য উপযুক্ত।

  • হাঁসের ব্রুডিং পিরিয়ড স্বল্প সময় থাকে এবং তা দ্রুত বর্ধনশীল।

  • হাঁস খাদ্য হিসাবে পোকামাকড়, পুকুর থেকে শামুক ইত্যাদি গ্রহণ করে থাকে। সুতরাং এর খাদ্যে পালকের ব্যয় কম হয়।

  • হাঁসের মাংস খুবই সুস্বাদু এবং ভারত ছাড়াও বিশ্বজুড়ে এর প্রচুর চাহিদা রয়েছে, সময়ের সাথে সাথে এর চাহিদাও ক্রমবর্ধমান।

কৃষক কৃষিকাজের পাশাপাশি অতিরিক্ত উপার্জনের জন্য হাঁস পালন করতে পারেন। এই ব্যবসার জন্য খুব বেশী মূলধন নিয়োগের প্রয়োজন পড়ে না এবং মুরগীর তুলনায় হাঁস পালন লাভজনক।

আরও পড়ুন - গ্রামীণ যুবক/মৎস্য চাষিরা মাত্র ৫-৬ মাসে পাবদা চাষ করে আয় করুন অতিরিক্ত অর্থ (Profitable Fish Farming)

English Summary: Unemployed youths of the village earn extra income by raising ducks as a farming business

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.