Agriculture Govt. Schemes: জেনে নিন কৃষকদের সরকারি প্রকল্পের আবেদন পদ্ধতি

KJ Staff
KJ Staff
Farmers Scheme (Image Credit - Google)
Farmers Scheme (Image Credit - Google)

কেন্দ্র তথা রাজ্যের অর্থনীতির মেরুদন্ড হলো কৃষি | কৃষিক্ষেত্রে কৃষকবন্ধুদের বিভিন্ন ধরণের সহায়তা কেন্দ্র এবং রাজ্য করে থাকে | কৃষকদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন ফলদায়ক প্রকল্প | সেই প্রকল্পের সুবিধা পেতে কোথায় আবেদন করতে হবে, কী কী নথিপত্র লাগবে, কতটা সহায়তা মিলবে সেই সম্পর্কে এই নিবন্ধে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

বিভিন্ন প্রকল্প ও তাদের আবেদন পদ্ধতি (Application Procedure) :

১) কিষান সম্মাননিধি (Kishan Samman Nidhi):

কেন্দ্রীয় সরকারের এই প্রকল্প ২০২১ সালে বাংলায় চালু হয়েছে। এই প্রকল্পে একজন কৃষক জমির পরচা থাকলেই বছরে ৩টি ধাপে ২০০০ টাকা করে মোট ৬০০০ টাকা পাবেন। ১ শতক বা তার বেশি জমি থাকলেই মিলবে এই প্রকল্পের সুবিধা। তবে পরিবারের একজন মাত্র আবেদন করতে পারবেন।

কারা আবেদন করতে পারবেননা (Who Can Apply) :

১) MLA, MP, চেয়ারম্যান, সভাপতিরা আবেদন করতে পারবেন না।

২) সরকারি চাকুরি করলে আবেদন করতে পারবেন না।

৩) পেনশন ১০০০০ টাকার উপরে পেলে আবেদন করতে পারবেন না।

৪) জমির দলিল বা ওয়ারিশন সূত্রের প্রাপ্ত জমি দেখিয়ে আবেদন করতে পারবেন না।

আবেদনের পদ্ধতি (Application procedure)

PMkishan.gov.in-এ গিয়ে online দরখাস্ত করতে হবে। পরে Online-এ প্রাপ্ত কাগজের সঙ্গে ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, জমির পাট্টা ও ব্যাঙ্ক একাউন্টের ডিটেল ব্লক কৃষি দপ্তরে জমা দিতে হবে। সহকৃষি অধিকর্তা সব দেখে অ্যাপ্রুভ করলেই মিলবে কিষাণ সম্মাননিধি প্রকল্পের টাকা।

২) আতমা (ATMA scheme)

এই প্রকল্প ব্লক স্তরে কৃষিদপ্তর, উদ্যানপালন, প্রাণীসম্পদ, মৎস, রেশম ও কৃষি বিপণন দপ্তর একসঙ্গে কাজ করে। এ ক্ষেত্রে কৃষকদের প্রশিক্ষণ, প্রদর্শনী ক্ষেত্র, ফার্ম স্কুল, শিক্ষামূলক ভ্রমণ (জেলার ভেতর ও বাইরে) করানো হয়। ফার্মার Interest Group তৈরি করে তাঁদের Capacity Build up করা ও বীজ কেনার জন্য টাকা (Seed money ) দেওয়া হয়। যাতে গোষ্ঠীগুলি অর্থনৈতিকভাবে সক্ষম হয়।

আবেদন পদ্ধতি (Application procedure):

আতমা (ATMA) প্রকল্পে রাজ্য, জেলা ও ব্লকস্তরের কমিটি থাকে। ব্লক থেকে Block Action Plan জেলায় যায়, জেলায় GB meeting করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় তারপর তা রাজ্যস্তরে পৌঁছয়। এরপর তা কেন্দ্রে পাঠানো হয়। এই প্রকল্পে কেন্দ্র অনুমোদন দেওয়ার পর কাজ শুরু হয়। এই প্রকল্পের কাজ স্পষ্টভাবে করার জন্য ৩ জন ATM (Aassistant Technology Manager) ও ১ জন BTM (Block Technology Manager) ব্লক কৃষি দপ্তরে নিয়োগ করা হয়।

৩) রাজ্য দুর্যোগ মোকাবিলা ফান্ড (State Disaster Response Fund )

এই স্কিমেও চাষিদের আর্থিক সাহায্য করা হয়। বন্যা, খরা, শিলাবৃষ্টি ইত্যাদির ফলে চাষের উপকরণ কেনার জন্য ১০০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২৭৫০০ টাকা দেয়। কোনও প্রাকৃতিক দূর্যোগ ঘটে গেলে ব্লকের-সহ কৃষি অধিকর্তা মৌজা ভিত্তিক মূল্যায়ন করে। কোনও মৌজার ৩৩% এর বেশি এলাকা ক্ষতিগ্রস্ত হলে সেই মৌজাগুলি চিহ্নিত করে জেলায় পাঠায়। জেলা থেকে জেলাশাসক দ্বারা ওই মৌজাগুলিকে Notification করা হয়। যে মৌজাগুলি Notify হয়, সেখানকার কৃষকরা সরকারি সাহায্য  পাবে। খরিফ শষ্যে শতকে ২৭ টাকা, রবি শষ্যে শতকে ৫৪ টাকা দেওয়া হয়। তবে রাজ্য সরকার অনেক সময় খরিফ শষ্যে শতকে ৫৪ টাকা করে দেয়।

আরও পড়ুন - PMJAY - প্রধানমন্ত্রীর এই প্রকল্পের আওতায় কৃষক এবং শ্রমিকরা পাবেন বিনামূল্যে চিকিৎসা

আবেদন করার পদ্ধতি (Application procedure):

মুদ্রিত দরখাস্ত ফর্ম, ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, চালু ব্যাঙ্ক একাউন্ট (রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাঙ্ক), সাম্প্রতিক কম্পিউটারাইজড পরচা-সহ দরখাস্তটি সহ-কৃষি অধিকর্তার দপ্তরে বা Camp-এ জমা দিতে হয়। Verify হওয়ার পর মেলে অর্থ।

নিবন্ধ: রায়না ঘোষ

আরও পড়ুন - Duare Aadhar Ration Card Aadhar Linking – সরকারি সহায়তায় এখন বাড়ি থেকেই রেশন কার্ড আধারের সাথে করা যাবে সংযোগ, পড়ুন পুরো খবর

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters