Apple Farming: গ্রীষ্মকালে কিভাবে বাড়ির ছাদে আপেল চাষ করবেন, জেনে নিন পদ্ধতি

KJ Staff
KJ Staff
Apple (Image Credit -Google)
Apple (Image Credit -Google)

আপেল এক অতি জনপ্রিয় মিষ্টি সুস্বাদু ফল | এটি রোসাসি (Rosaceae) পরিবারের ম্যালিয়াস ডমেস্টিকা (Malus domestica) প্রজাতিভুক্ত | সারা পৃথিবীব্যাপী সাধারণত আপেলের চাষ হয়ে থাকে | তবে, যেহেতু এটি শীতকালীন ফল, তাই অনেকেই ভাবেন আমাদের দেশের এই গরম আবহাওয়ায় কিভাবে এই মিষ্টি ফলের চাষ করবেন |

আপনার বাড়িতেই কিন্তু সহজ উপায়ে এই ফলের চাষ (Apple cultivation) করে তাকে লাগিয়ে দিতে পারেন | তার জন্য, এই নিবন্ধটি পুরোটা আপনাকে পড়তে হবে, তবে দেখে নিন কি কি করনীয় এই আপেল  চাষের জন্য;

জাত নির্বাচন:

সাধারণত, আমাদের আবহাওয়ায় আপেল গাছে ফুল আছে ফেব্রুয়ারী মাসে এবং ফল পাকে অগাস্ট সেপ্টেম্বর মাসে | বছরের এই সময়ে পশ্চিমবঙ্গে এবং বাংলাদেশে আনুমানিক ৩০ থেকে ৪৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস | এই প্রচন্ড গরমে কোনো সাধারণ আপেল হওয়া সম্ভব না, তাই তার জন্য কয়েকটি উল্লেখযোগ্য জাত হল, হরিমন ৯৯ (hrmn 99 ) আপেল, গোল্ডেন ডরসেট আপেল (Golder dorset) এবং আনা আপেল | অন্যান্য আপেল গাছে ফুল আসার জন্য যেখানে কড়া ঠান্ডার প্রয়োজন হয়, সেখানে এই জাতিগুলির জন্য প্রয়োজন হয়না | এই জাতিগুলির জন্য মাত্র ৩০০ ঘন্টা ঠান্ডা আবহাওয়া হলেই চলে | অর্থাৎ শীতকালে ১২-১৩ দিন কড়া শীত পড়লেই গাছে ফুল আসবে |

মাটি তৈরী (Soil preparation):

আপেল গাছ করার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সঠিকভাবে মাটি তৈরী | ৩০ শতাংশ বাগানের মাটি, ৩০ শতাংশ কম্পোস্ট, ২০ শতাংশ কোকোপিট্, ১০ শতাংশ সাদা বালি এবং নিতে হবে ১০ শতাংশ বালি চলা পাথর | এরপর প্রতি ১ বস্তা মাটির জন্য নিতে হবে ৪০০ গ্রাম হার গুঁড়ো, ২০০ গ্রাম নিম খোল এবং ১০ গ্রাম যেকোনো ফাঙ্গিসাইড পাউডার | এবার আপনাকে সবকিছু উপাদান একসাথে মিশিয়ে নিতে হবে এবং এই মিশ্রণটি হলো আপেল গাছের পুষ্টি | এভাবে মাটিকে মিশিয়ে জল দিয়ে ভিজিয়ে পলিথিন দিয়ে ঢেকে রাখতে হবে বা বস্তার মধ্যে ভরে ১০ থেকে ১৫ দিন রাখতে হবে | তারপর সেই মাটিকে বার করে রোদে শুকিয়ে ব্যবহার করতে হবে | গাছ বসানোর সময় মাথায় রাখতে হবে, টবটিকে সম্পূর্ণ মাটি দিয়ে ভর্তি করবেননা |

গাছের পরিচর্যা (Crop care) :

গাছ বসানোর পরে খেয়াল রাখতে হবে, গাছে যেন জল ধরে না রাখে | টবের নিচে গর্ত দিয়ে জল বেরিয়ে যায় | গাছে নিয়মিত পেস্টিসাইড স্প্রে করতে হবে | যাতে ছত্রাক ঘটিত রোগ না হয় | ফেব্রুয়ারী মাসের গাছের ফুল আসার জন্য বিশেষ যত্ন নিতে হয় | অনেক সময় দেখা যায় ফুলের বদলে পাতা বের হয় | তাই ফুলের সম্ভাবনা বাড়ার জন্য এই মাসে প্লানোফিক্স PGR প্রতি লিটার জলে ৫ ফোটা গুলে গাছে স্প্রে করতে হবে | মার্চ মাসে সপ্তাহে ১ বার মানকোজেব যুক্ত যেকোনো ছত্রাকনাশক গাছে স্প্রে করতে হবে | গাছে ফল ধরলে ৭-১০ দিন ছাড়া নিম তেল ও ফাঙ্গিসাইড মিশিয়ে গাছে স্প্রে করতে হবে |

সার প্রয়োগ (fertilizer):

আপেল গাছের ক্ষেত্রে ২ মাস অন্তর মিশ্র জৈব সার ব্যবহার করা যেতে পারে | ২৫ শতাংশ সর্ষে খোলের গুঁড়ো, ২৫ শতাংশ নিম খোল, ২৫ শতাংশ হার গুঁড়ো এবং ২৫ শতাংশ সিমকুচি নিতে হবে | এই পুরো মিশ্রনের মধ্যে ৫ গ্রাম SOP বা সালফেট অফ পটাস দিতে হবে | টব যদি ১০-১২ ইঞ্চির হয় এই উপাদানের ২ মুঠো গাছে ২ মাস অন্তর অন্তর প্রয়োগ করতে হবে | এবং প্রতি মাসে অনুখাদ্য হিসাবে Agromin Max ২ গ্রাম হরে দিতে হবে |

আরও পড়ুন - এই গ্রীষ্মে মৌমাছি পালনের ব্যবসা করে কীভাবে আয় করতে পারবেন প্রচুর অর্থ, জানুন বিস্তারিত

রোগবালাই ও দমন (Disease management system):

আপেল গাছ মাঝে মাঝে লাল মাকড়ের আক্রমণের শিকার হয় | এর আক্রমণে পাতা বিবর্ণ হয়ে শুকিয়ে যায় | এর জন্য PROFX SUPER মাকড়নাশক ব্যবহার করতে হবে |

নিবন্ধ: রায়না ঘোষ

আরও পড়ুন - Organic Farming: অর্গ্যানিক ফার্মিং বা জৈব কৃষিকাজে ফলছে সোনার ফসল

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters