Brussels Sprout Farming: জেনে নিন ব্রাসেল স্প্রাউট বা মিনি বাঁধাকপি চাষ পদ্ধতি

রায়না ঘোষ
রায়না ঘোষ
Brussels sprout (image credit- Google)
Brussels sprout (image credit- Google)

গতানুগতিক ব্রোকলি, ফুলকপির বিকল্প "ব্রাসেল স্প্রাউট" | মূলত, এটি একটি শীতকালীন সব্জি, যার বৈজ্ঞানিক নাম "Brassica Oleracea " | এটি ছোট আকৃতির বাঁধাকপির মতো দেখতে বলে অনেকে একে মিনি বাঁধাকপি বা বেবি ক্যাবেজ বলে ডাকে | সাধারণ বাঁধাকপির চেয়ে এর খাদ্যগুন ঢের বেশি | এতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এ , বি , প্রোটিন ও এন্টি অক্সিডেন্ট থাকে |

চাষাবাদ পদ্ধতি:

ব্রাসেলস স্প্রাউটের চাষাবাদ পদ্ধতি অনেকটা বাঁধাকপির মতো। এর বীজও দেখতে বাঁধাকপির মতো। বীজ থেকে চারা হয় এবং মুল জমিতে লাগাতে হয়।

জলবায়ু ও আবহাওয়া(Climate):

এটি শীতকালে সারাদেশে চাষ করা যাবে | প্রধানত, ১৫-১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় এটি সর্বোচ্চ ফলন দেয় | ৭-২৪ ডিগ্রি তাপমাত্রায় এই সব্জি আবাদ করা হয় | যেহেতু এটি শীতকালীন ফসল, তাই শীতকাল যত দীর্ঘ হবে এ ফসলের ফলনও তত বেশি হবে |

বীজের পরিমান:

বিঘা প্রতি বীজ বপনের জন্য ৫০-৬০ গ্রাম বীজ প্রয়োজন হয় |

আরও পড়ুন - Tomato Farming: আধুনিক পদ্ধতিতে টমেটো চাষ করে অধিক উপার্জন করুন

চারা রোপণের পদ্ধতি ও সময়:

এই বীজ বপন করার প্রধান সময় হলো কার্তিক-অগ্রহায়ণ (সেপ্টেম্বর থেকে অক্টোবর মাস)। ৩০-৩৫ দিন বয়সের চারা রোপণ করতে হয় | সারি থেকে সারির দূরত্ব হবে ৬০ সেমি বা ২ ফুট, চারা থেকে চারার দুরুত্ব হবে ৪৫ সেমি বা ১.৫ ফুট। বিকেলে চারা রোপণ করা অত্যন্ত ফলদায়ক |

চাষের জমি তৈরী:

ব্রাসেল স্প্রাউট চাষে স্যারের মাত্রা একটু বেশি লাগে | ইউরিয়া সার ৩-৪ কিস্তিতে প্রয়োগ করতে হয়। ৪-৫টি জমি আড়াআড়িভাবে চাষ করে আগাছা পরিস্কার করতে হয় |  মাটি নরম করে সমতল জমি তৈরি করে নিতে হয়। মালচিং পেপার বিছিয়ে দিলে আরও ফল ভালো হয় |

সার প্রয়োগের নিয়ম(Fertilizer):

জমি তৈরির সময় প্রতি হেক্টরে ১২০ কেজি এমপি, ৬ টন গোবর এবং ৯০ কেজি টিএসপি মাটির সাথে মিশিয়ে দিতে হবে | ইউরিয়া কে ৩ ভাগ করতে হবে | প্রথমভাগ চারা রোপণের ৭ দিন পর ছিটিয়ে দিতে হবে, দ্বিতীয়ভাগ  ২৫ দিন পর এবং তৃতীয়ভাগ ৪০ দিন পরে বন্ধনী পদ্ধতিতে গাছের চারিদিকে দিতে হবে |

ফসলের পরিচর্যা:

গাছ বড় হলে দুই সারির মাঝখান থেকে মাটি তুলে সারি বরাবর আইলের মতো করলে ব্রাসেল স্প্রাউট আকারে বড় হয় | জল জমলে সাথে সাথে নিকাশ করতে হবে | চারা লাগানোর দু মাস পর পর গাছের মাথা ভেঙে দিতে হবে | তবে দ্রুত ফলন হবে | এতে, আকার ও ওজন বাড়বে |

ফলন ও ফল-সংগ্রহের সময়:

স্প্রাউট জন্মানোর ১৫-২০ দিন পর পর সংগ্রহ করা যায় | সপ্তাহে ১-২ বার গাছ থেকে স্প্রাউট তোলা যায়। সাধারণত, একটি গাছে ৪০-৬০ টি স্প্রাউট হয়। গাছে যতগুলো পাতা থাকবে ততগুলো স্প্রাউট হবে। স্প্রাউটগুলো ৭-১০ সেমি আকারের এবং ওজন ৫০-৭০ গ্রাম হতে পারে যা নির্ভর করে জাতের ওপর |

আরও পড়ুন -Mushroom Varieties: উন্নতমানের মাশরুমের চাষযোগ্য জাতের পরিচয় ও চাষ পদ্ধতি

Like this article?

Hey! I am রায়না ঘোষ . Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters