Tuberose Disease Management - রজনীগন্ধা ফুলের বিভিন্ন রোগবালাই দমনের পদ্ধতি ও চাষের কৌশল

স্বপ্নম সেন
স্বপ্নম সেন
Tuberose flower (Image Credit - Google)
Tuberose flower (Image Credit - Google)

সর্বাপেক্ষা জনপ্রিয় ফুলগুলির মধ্যে রজনীগন্ধা (Tuberose cultivation) অন্যতম। সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে এবং ফুলদানী সাজাবার কাজে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। এছাড়া এফুলের নির্যাস হতে সুগন্ধিও তৈরি হয়ে থাকে। সারা বছরই বাজারে এ ফুলের চাহিদা বেশি থাকে এরং সারা বছরই এ ফুল চাষ হয়ে থাকে। রজনীগন্ধা টব এবং বাগানে বেড়ে ওঠার জন্য উপযুক্ত এবং এর থেকে ভাল সুগন্ধী তেল উত্তোলন করা যায়।

জাত (Variety) :

ফুলের পাঁপড়ি বা স্পাইকের সারি অনুযায়ী রজনীগন্ধা তিন ভাগে বিভক্ত। সিঙ্গেল, সেমি-ডাবল ও ডাবল। যে সব জাতের ফুলের পাঁপড়ি বা স্পাইক একটি সারিতে থাকে সে সব জাতগুলি সিঙ্গেল শ্রেনীভুক্ত, যে সব জাতে ফুলের পাঁপড়ি দুই বা তিন সারিতে থাকে সে জাতগুলিকে সেমি-ডবল এবং তিন-এর অধিক পাঁপড়ির সারি থাকলে সে জাতগুলিকে ডাবল শ্রেনীর আওতাভুক্ত হিসেবে ধরা হয়ে যায়।

মাটি:

সুনিষ্কাশন ক্ষমতাসম্পন্ন দোআঁশ ও বেলে মাটি রজনীগন্ধা চাষের জন্যে উপযুক্ত। মাটির পিএইচ 6.5-7.5 থাকা এর বৃদ্ধির জন্য আদর্শ মান।

জমি প্রস্তুতি:

রজনোগন্ধা রোপনের জন্য, ভালভাবে জমি চাষ করে নেওয়া প্রয়োজন। মাটি ঝুরঝুরে করে উপযুক্ত বানাতে হবে, এর জন্যে ২-৩ টি চাষ করা প্রয়োজন হয়। রোপণের সময় পচা গোবর সার @১০-১২ টন /একর যোগ করুন এবং জমিতে ভালভাবে মিশ্রিত করুন।

বীজ:

বীজের হার

২১০০-২৫০০ বাল্ব / একর জমিতে ব্যবহৃত হয়।

বপন:

মার্চ-এপ্রিল মাস বীজ বপনের জন্য সর্বোত্তম সময়।রোপণ অরতে ৪৫ সেন্টিমিটার ফাঁকা রেখে করা হয়। ৯০ সেমি প্রশস্ত বীজতলা প্রস্তুত করে নিতে হবে।

সার:

ফুল বৃদ্ধির সময়,  ইউরিয়া ৬৪০ কেজি / একর আকারে নাইট্রোজেন যুক্ত করুন। নাইট্রোজেনের অর্ধেক ডোজ বপনের এক মাস আগে যুক্ত করা হয় এবং তারপরে বাকি ডোজ আগস্ট মাস পর্যন্ত সমান পরিমাণে ১ মাস পর পর দিতে হবে। সার যোগ করার পরে ভাল করে সেচ দিতে হবে।

আগাছা নিয়ন্ত্রণ (Weed management) :

ক্ষেত আগাছামুক্ত করতে, ৩-৪ বার আগাছা উত্তোলন প্রয়োজন। চারা রোপনের সাথে সাথেই এবং রোপণের ৪৫ দিন পরে, ২০০ লিটার পানিতে Atrazine০.৬ কেজি / একর বা oxyfluorfen ০.২ কেজি/ একর বা pendimethalin৮০০ মিলি/ একর আগাছা নিরোধক হিসাবে স্প্রে করতে হবে।

সেচ:

বাল্ব ফোটা না পর্যন্ত কোনও সেচের প্রয়োজন হয় না। অঙ্কুরোদগম এবং ৪-৬টি পাতা গজালে সেচ দেওয়া প্রয়োজন। এক সপ্তাহে একবারই দিতে হয়। মাটি এবং জলবায়ু অবস্থার উপর নির্ভর করে ৮-১২ বার সেচ প্রয়োজন।

রজনীগন্ধার রোগ-বালাই ও এর প্রতিকার

রোগ এবং এর নিয়ন্ত্রণ:

কাণ্ড পচা :

Sclerotium rolfsii দ্বারা সৃষ্ট। লক্ষণগুলি হল পাতার পৃষ্ঠে ছত্রাকের বৃদ্ধি। স্পট অংশটি তার সবুজ রঙ হারিয়ে ফেলে এবং পাতা ঝরে পড়ে।

দমন - 

কাণ্ড পচা থেকে মুক্তি পেতে মাটিতে ১২.৫ কেজি/ একর ব্রাসিকোল(২০%) প্রয়োগ করুন।

বোট্রিটিস স্পট এবং ব্লাইট :

এটি মূলত বর্ষাকালে ছড়ায়। লক্ষণগুলি হল বাদামী রঙের দাগ ফুলগুলিতে দেখা যায়, পরিণামে পুরো ফুল ধ্বসে যায়।

দমন - 

Carbendazim ২ গ্রাম / লিটার জলে ১৫ দিনের ব্যবধানে স্প্রে করলে দাগ এবং দোষ থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে

পাতা মোচড়ানো :

লক্ষণগুলি হল পাতা ঢলে পড়ে। পাতা হলুদ হয়ে শেষ পর্যন্ত শুকিয়ে যায়। এটি ধীরে ধীরে পুরো উদ্ভিদকে প্রভাবিত করে। সংক্রামক কাণ্ড এবং বোঁটায় ঘন সুতির মত বৃদ্ধি দেখা যায়।

দমন -

Zineb ০.০৩%প্রতি একরে ১ লিটার জলে ২ গ্রাম মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে।

আরও পড়ুন - Profitable Coconut Farming - আধুনিক পদ্ধতিতে কল্পবৃক্ষ নারকেল চাষ থেকে কীভাবে অধিক অর্থ উপার্জন করবেন

ঘাসফড়িং:

তারা ছোট পাতা এবং ফুলের মুকুল খায়। এছাড়াও এরা ফল এবং ফুলের ক্ষতি করে।

দমন -

ম্যালাথিয়ন ০.০.১% বা Quinalphos  ০.০৫% বা  Carbaryl ০.০.১% ৬ গ্রাম প্রতি লিটারে মিশিয়ে একর প্রতি স্প্রে করতে হবে।

ফসল কাটা -

রোপণের ৩-৩.৫ মাস পরে ফুল সংগ্রহ করা যেতে পারে। ফুল ফোটার জন্য উপযুক্ত সময় হল আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাস। প্রধানত নিচের ২-৩ টি ফুলের কুঁড়ি খোলা থাকলেই ফসল সংগ্রহ করা যায় এবং কাপড়ের উপর বসিয়ে ছায়ায় রেখে দিতে হবে।

আরও পড়ুন - Greater yam - আধুনিক পদ্ধতিতে গাছ আলু চাষ করে দ্বিগুণ মুনাফা অর্জন করুন

Like this article?

Hey! I am স্বপ্নম সেন . Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters