Mushroom Spawn and Farming: ঝিনুক মাশরুমের চাষে করুন দ্বিগুন উপার্জন

Friday, 04 June 2021 01:22 PM
Mushroom (Image Credit - Google)

Mushroom (Image Credit - Google)

অনেক ধরণের ছত্রাকের মধ্যে পুষ্টিগুণসম্পন্ন ভোজ্য ছত্রাক হলো মাশরুম | এই মাশরুমের চাহিদা বাজারে বেশ ব্যাপক| এটা এমন একটা খাবার, যেটা খাদ্যগুণের নিরিখে প্রায় আমিষের সমান। কম ক্যালোরি হওয়ায় হৃদরোগীদের খাবার হিসাবে খুবই ভাল। এছাড়া রক্তাল্পতা বা ডায়াবেটিস প্রতিরোধে কিংবা শিশুদের হাড় ও দাঁতের বৃদ্ধির জন্য মাশরুম খুবই উপকারী।

আমাদের দেশে মূলত তিন ধরনের মাশরুম চাষ হয়— বোতাম, পোয়াল, ঝিনুক। এর মধ্যে সহজেই বাড়িতে চাষ করা যায় ঝিনুক মাশরুম। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতে ঝিনুক মাশরুম চাষের (Mushroom cultivation) সম্ভাবনা খুবই উজ্জ্বল। খুব গরমকাল বাদ দিলে প্রায় সারা বছর এই মাশরুম চাষ করা যায়। তবে, সেপ্টেম্বর থেকে মার্চ মাসের মধ্যে এই চাষ করতে পারলে ভাল। শুকিয়ে রেখে দিতে পারবেন সাত থেকে আট মাস পর্যন্ত। তবে, দেখে নিন কিভাবে চাষ করবেন এই মাশরুম;

পলিথিন ব্যাগে মাশরুম চাষ (Mushroom spawn):

এই ভাবে মাশরুম চাষ করার জন্য এক বিশেষ ধরনের পলিথিনের ব্যাগ লাগে। পলিথিনের ক্যারিব্যাগের মতোই, তবে দুমুখ খোলা। তলার মুখটা দড়ি দিয়ে বেঁধে নিয়ে খড় চাপাতে হয় পলিব্যাগের মধ্যে। খড় হবে ধান বা গমের। ২-৩ সেমি আকারে কেটে আগের রাতে ব্যাভিস্টিন গোলা জলে (প্রতি লিটারে এক গ্রাম ব্যাভিস্টিন) ভিজিয়ে রাখতে হবে। ব্যাভিস্টিন খড়ের মধ্যের জীবাণু প্রতিরোধে সাহায্য করে। পরদিন ব্যাভিস্টিন ভেজানো খড় ১ ঘণ্টা ধরে সিদ্ধ করতে হবে। এতে খড়গুলি সম্পূর্ণ রূপে জীবাণুমুক্ত হবে।

৫ গ্রাম চুন ও ২ গ্রাম ব্লিচিং পাওডার প্রতি লিটার জলে মিশিয়ে খড় ১ রাত ভিজিয়ে রাখলে দ্বিতীয় দিনে আর সিদ্ধ করার প্রয়োজন হয় না। ভেজা খড় ঝুড়িতে রেখে দিলে অতিরিক্ত জল ঝরে যাবে, ক্লোরিনের গন্ধ উবে যাবে। এর পর পলিথিনের ব্যাগে ৬ ইঞ্চি পুরু করে খড়ের স্তর চাপিয়ে তার উপর প্রয়োজন মতো বীজ ছড়াতে হবে। এই বীজের উপর আবার ৪ ইঞ্চি পুরু করে খড়ের স্তর দেওয়ার পর বীজ ছড়াতে হবে। এই ভাবে কয়েকটি স্তর করার পর শেষে বীজের স্তরের উপর এক ইঞ্চি পুরু করে খড় বিছাতে হবে।

সাজানো হয়ে গেলে উপরে আবার একটা দড়ি দিয়ে পলিথিনটা বেঁধে দেওয়া হয়। এই ভাবে যে পলিথিনের সিলিন্ডার তৈরি হল, তার চারপাশে ও নীচে কয়েকটি ফুটো করে ছায়াযুক্ত স্থানে কাঠের টেবিল বা ওই জাতীয় কিছুর উপরে রেখে দিলেই হবে। ১৮-১৯ দিনের মাথায় কুঁড়ি ফুটতে শুরু করলে উপরের পলিথিনের আস্তরণটা খুলে দিতে হবে। ততদিনে খড় এঁটে যাবে।

২ দিনের মধ্যেই ফসল তোলার উপযুক্ত হয়। ফসল তুলে রেখে দিলে কিছু দিন পর আবার মাশরুম বেরোবে। এই সময় ভিতরের খড় শুকিয়ে গেলে মাঝেমধ্যে জল স্প্রে করতে হবে। নিয়মিত জল দিলে ১০-১২ দিন অন্তর ৩ বার ফসল তোলা যাবে।

বাঁশের ট্রে-তে মাশরুম চাষ:

চাষের পদ্ধতিটা আগের মতোই। শুধু পাত্র আলাদা। এক্ষেত্রে শোধন করে ভেজা খড়ের জল ঝরিয়ে নিয়ে বাঁশের ট্রে-তে প্রথমে ২ ইঞ্চি পুরু করে বিছিয়ে নিতে হবে। এর উপর হাল্কা করে বীজ ছড়িয়ে দেওয়ার পর আবার ১ ইঞ্চি পুরু খড়ের স্তর দিতে হবে। তারপর হাল্কা বীজ ছড়িয়ে আবার ১ ইঞ্চি খড়ের স্তর দিতে হবে। শেষের খড় বিছানোর পর কালো পলিথিনের চাদর দিয়ে ঢেকে দিতে হবে এবং ছায়াযুক্ত স্থানে রাখতে হবে। মাঝে-মধ্যে ঢাকনা খুলে হাল্কা জল স্প্রে করতে হবে। ১৮-২০ দিন পর মাশরুমের কুঁড়ি বের হতে শুরু করলে উপরের পলিথিনের চাদর সরিয়ে দিন। ২ দিনের মধ্যে ফসল তোলা যাবে।

রোগবালাই ও প্রতিকার (Disease management system):

অনেক রকম আগাছা ও রোগপোকার সমস্যা দেখা যায় মাশরুম চাষে। একবার আক্রমণ হলে দমন করা খুবই কঠিন। তাই পরিষ্কার জায়গায় চাষ করতে হবে। পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। নয়তো বাড়িতে চাষ করা মাশরুমও রোগপোকার আক্রমণে বিষাক্ত হয়ে যেতে পারে। বিষাক্ত ছত্রাক কিছুটা গরম জলে রেখে কিছুক্ষণ পর একটি রান্নার চামচ দিয়ে স্পর্শ করলে চামচের উপর কালো আস্তরণ পড়ে। ভোজ্য মাশরুমে এটা হয় না। একটা গ্রাম্য টোটকাও আছে। ক্ষুধার্ত মুরগিকে খেতে দিলে তারা যদি না খায়, বুঝতে হবে সেটি বিষাক্ত ছত্রাক। এছাড়া যে সমস্ত ছত্রাক উজ্জ্বল রঙের, তিক্ত স্বাদ ও দুর্গন্ধযুক্ত সেগুলি বিষাক্ত। বিষাক্ত ছত্রাক দুধে দিলে দুধ ফেটে যায় বা জমে যায়।

Kharif Crop - আগত খারিফ মরসুমে পেঁয়াজ চাষে বিভিন্ন রোগের প্রতিকার করবেন কীভাবে?

এইভাবে মাশরুম চাষে বহু বেকার যুবক-যুবতীর কর্মসংস্থান হচ্ছে | গ্রামীণ অর্থনীতিতেও বিকাশ ঘটছে | চাষীভাইরা এই মাশরুম চাষে লাভও ঘরে তুলতে পারবেন |

নিবন্ধ: রায়না ঘোষ

আরও পড়ুন - বাড়ির টবে সহজ পদ্ধতিতে করুন রসুন চাষ

English Summary: Mushroom Farming: Make double income by cultivating mushrooms

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.