দক্ষিণবঙ্গের সীমান্তে BSF’র হাতে আটক চোরাকারবারী, উদ্ধার 140টি তোতা

 রুপালী দাস
রুপালী দাস
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

দক্ষিণবঙ্গ সীমান্তে দিন দিন বেড়েই চলেছে চোরাচালান। বহু বন্যপ্রাণী পাচার হচ্ছে ওপার বাংলায়। এমনটাই মনে করছেন সীমান্ত নিরাপত্তা বাহিনীর একজন শীর্ষ কর্মকর্তা। সম্প্রতি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম ANI টুইট অনুযায়ী দক্ষিণবঙ্গ সীমান্তে বিএসএফ সৈন্যরা ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে বন্যপ্রাণী চোরাচালান আটকে 140টি সবুজ তোতাপাখিসহ একজন চোরাকারবারীকে আটক করেছে। ঘটনা নিয়ে তদন্ত করছে বিএসএফ টিম।

আরও পড়ুনঃ মধ্যপ্রদেশে আধিকারিকদের গাফিলতিতে নষ্ট হচ্ছে কোটি কোটি উড়াড় ডাল, ছোলা ও মসুর ডাল

2018 সালে, বিএসএফ দক্ষিণবঙ্গ সীমান্তে 22টি চালান আটক করেছিল, 2019 সালে সংখ্যাটি 13-এ নেমে গিয়েছিল। 2020 সালে  মহামারী এবং লকডাউন সত্ত্বেও বিএসএফ অক্টোবর পর্যন্ত কমপক্ষে 25টি চালান আটক করেছিল। বিএসএফ-এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গতবছর  14টি গেকো টিকটিকি, 31টি কোকাটু, 77টি তোতা ও 95টি কবুতর জব্দ করা হয়েছে। 2019 সালে প্রায় 64টি কবুতর এবং 46টি তোতাপাখির পাচার আটক করেছিলেন।

পশ্চিমবঙ্গের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত সারা দেশের যে কোনও রাজ্যের মধ্যে দীর্ঘতম আন্তর্জাতিক সীমান্ত। 4096.7 কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তের মধ্যে, পশ্চিমবঙ্গ একাই প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে 2216 কিলোমিটার শেয়ার করেছে। এতবড় সীমান্তের জন্য বেশিরভাগ সময় পাচারকারীরা ঘন জঙ্গলের মধ্যে পাখির বাক্স ফেলে নিজেদের গা ঢাকা দেওয়ার জন্য পালিয়ে যেতে পারতেন। উল্লেখ্য, 2017, 2018 এবং 2019 সালে, নিরাপত্তা সংস্থাগুলি  ভারত-বাংলা সীমান্তের সমগ্র অংশে যথাক্রমে 1175, 1118 এবং 1351 জনকে গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুনঃ এখন ট্র্যাক্টর, লাঙ্গল, রোটাভেটর, ট্রলির মতো কৃষি যন্ত্র সুলভ মূল্যে পাওয়া যাবে

Like this article?

Hey! I am রুপালী দাস. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters