সুপার সাইক্লোন আমফানের (Amphan-hit areas) ক্ষতিপূরণ বাবদ রাজ্যের আবেদন এখন ৮০ হাজার কোটি টাকা

Saturday, 06 June 2020 04:00 PM

সুপার সাইক্লোন আম্ফানের দ্বারা পশ্চিমবঙ্গে গত মাসে যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তা নির্ধারণ করতে সাত জন সদস্যের একটি টিম সেন্ট্রাল থেকে রাজ্যে আসে। দলটি শুক্রবার দক্ষিণ ও উত্তর চব্বিশ পরগনার জেলাগুলির কয়েকটি অঞ্চল পরিদর্শন করেছে। সরকারের রিপোর্ট অনুযায়ী, এই ঘূর্ণিঝড়ে রাজ্যের ক্ষতি হয়েছে ৮০,০০০ কোটি টাকা।

আমফানে রাজ্যের ক্ষয়ক্ষতি-

ইউনিয়ন স্বরাষ্ট্র দফতরের যুগ্ম সম্পাদক অনুজ শর্মার নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় টিমটি কাল ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চল বিশেষ করে দক্ষিণ ও উত্তর ২৪ পরগনায় ঝড়ে বিধ্বস্ত জেলাগুলির উপর একটি সমীক্ষা করেছে। সেখানকার মানুষের বাসস্থান, সমগ্র জনজীবন ও সম্পত্তির উপর এর প্রভাব ও ক্ষতির সমীক্ষা শুরু করে। কমপক্ষে ৯৮ জন নিহত এখানে। তারা শনিবার অর্থাৎ আজ নবান্নে রাজ্যের মুখ্য সচিব রাজীব সিনহার সাথে দেখা করার আগে স্থানীয় জনগণের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সাথেও কথা বলেছেন। 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, 

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলগুলি পরিদর্শনের পর কেন্দ্র পূর্বেই এক হাজার কোটি টাকার অগ্রিম ত্রাণ প্রকাশ করেছিল। রাজ্য সরকার তখনই জানিয়েছিলেন সাইক্লোনের প্রভাবে রাজ্যের ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১ লক্ষ হাজার কোটির উপরে।

জেলা পরিদর্শন -

দলটি দক্ষিণ এবং উত্তর ২৪ পরগনার ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলগুলি দেখার জন্য হেলিকপ্টার, যানবাহন এবং নৌকা ব্যবহার করবে। পশ্চিমবঙ্গের গভর্নর জগদীপ ধনখর বলেছেন: "আন্তঃমন্ত্রীত্বমূলক কেন্দ্রীয় টিএম আমফানের প্রভাবে বিধ্বস্ত অঞ্চলগুলি পরিদর্শন করবে ও শেষে নবান্নে বৈঠক করবে (৪-৬ ই জুন) এবং কেন্দ্রে সেই রিপোর্ট প্রেরণ করবে।

এদিকে, লকডাউনে দেশের আর্থিক ক্ষতি, সাথে সুপার সাইক্লোন আমফানের কারণে সমগ্র রাজ্য বিধ্বস্ত। রাজ্যের দাবি এই ৮০ হাজার কোটির ক্ষতিপূরণ।

আন্তঃমন্ত্রণালয় কেন্দ্রীয় দল (আইএমসিটি) নিজেদের দুটি গ্রুপে বিভক্ত করেছে, যার একটি সকালে উত্তর চব্বিশ পরগনার সন্দেশখালী ভ্রমণে সন্দেশখালী -১, সন্দেশখালী -২ এবং নাজত -১ ব্লক জরিপ করে। অপর দলটি হেলিকপ্টারে দক্ষিণ ২৪ পরগনার পাথরপ্রতিমায় যায় এবং উত্তর গোপালনগর, উত্তর ধর্মগর, ব্রজবাল্লভপুর, রামগঙ্গা এবং ভরতলা প্রভৃতি অঞ্চল পরিদর্শন করে।

এক আধিকারিকের মতে, দলগুলি দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা জেলার নামখানা এবং উত্তর চব্বিশ পরগনার হিংগলগঞ্জ এবং বসিরহাট পরিদর্শন করেছে। মিনাখান ও মালঞ্চা ব্লকগুলিতে, বিক্ষোভকারীরা তাদের অভ্যর্থনা জানায় এবং পর্যাপ্ত ত্রাণ ও খাবার সামগ্রী সরবরাহ না করার রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলে।

আইএমসিটি-র পক্ষ থেকে সংবাদমাধ্যমকে পরে জানানো হয়, 'আমরা প্রতিটি বিবরণের নোট নিচ্ছি।' আমরা ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চল দেখেছি, জেলা প্রশাসনের সাথেও কথা বলেছি। আমরা এই সম্পূর্ণ বিবরণ দিল্লিতে জানাবো, বলে জানিয়েছেন দলের প্রধান স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব অনুজ শর্মা।

সূত্র অনুযায়ী জানা গেছে, আন্তঃমন্ত্রণালয় গোষ্ঠী শনিবার বিকেলে রাজ্য সচিবালয় নবান্নে মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা এবং অন্যান্য সিনিয়র রাজ্য সরকারী কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করবে।

Related Link -

প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিল (PM CARES Fund) থেকে শ্রমিকদের জন্য অনুদানের আবেদন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর

 

English Summary: Central team visits cyclone Amphan-hit areas of West Bengal- state seeks rs. 80 cr

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.