পশ্চিমবঙ্গেও কি লকডাউন (Lockdown 5.0 Extended) স্থায়ী ৩০ শে জুন পর্যন্ত

KJ Staff
KJ Staff

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। মার্চ থেকে শুরু হয়ে তা এখনও জারি রয়েছে, সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে তা বর্ধিত হয়েছে এবং কিছু ক্ষেত্রে নিয়ম শিথিল হয়েছে। এখন আমরা চতুর্থ দফার লকডাউনের শেষে রয়েছি। অনেক রাজ্যেই আবারও বাড়ানো হয়েছে এই সময়সীমা। হিমাচলপ্রদেশেই এর সময়সীমা ৩০ শে জুন পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী লকডাউনের পঞ্চম দফা বাড়ানো সম্পর্কে স্পষ্ট করে এখনও কোন সময়সীমা না জানালেও শুক্রবার রাজ্য সচিবালয়ে ঘোষণা করেছেন যে, ৮ ই জুন থেকে সমস্ত অফিসে শতকরা ৭০ শতাংশ কর্মচারী নিয়ে রাজ্যে কাজ শুরু হতে চলেছে। তবে ১ লা জুন থেকে, পাটকল ও চা শিল্পকে সকল কর্মীদের নিয়ে কাজ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ধর্মীয় স্থানগুলিও খোলার অনুমতি দিয়েছে সরকার, কিন্তু একসাথে ১০ জনের বেশী লোক একত্রিত হওয়ার ক্ষেত্রে এখনও নিষেধ জারি রয়েছে।

লকডাউনে নতুন শিথিলকরণ -

  • মন্দির, মসজিদ, গীর্জা এবং গুরুদ্বারের মতো সমস্ত উপাসনালয়, ধর্মীয় স্থান ১ লা জুন থেকে পুনরায় খুলবে
  • কোন বড় অনুষ্ঠান করা যাবে না
  • ধর্মীয় স্থানগুলিতে সর্বাধিক ১০ জনের সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হয়েছে
  • সমস্ত সরকারি ও বেসরকারী অফিস ৮ ই জুন থেকে খোলা হবে
  • চাপাট শিল্পের কার্যক্রম ১ লা জুন থেকে ১০০ ভাগ অর্থাৎ সকল শ্রমিক নিয়ে পুনরায় চালু হতে চলেছে
  • খুলতে চলছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিও।
  • বাস চললেও তাতে যতগুলি আসন ততজন যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে হবে বলে ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

তবে বাসের ভাড়া নিয়ে পরিস্থিতি জটিল হয়েছে। বেসরকারী বাসগুলির ভাড়া বেড়ে যাওয়ায় রাস্তায় সরকারী বাসে মানুষের সংখ্যা বাড়ছে।

এছাড়া স্থানীয় ট্রেন এবং মেট্রোরেল ৮ ই জুনের মধ্যে পুনরায় চালু হবে কিনা তা স্পষ্ট না করেই বেসরকারী অফিসগুলিকে সম্পূর্ণ এমপ্লয়ী নিয়ে কাজ করার অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্তের ফলে অফিসের যাত্রীদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়েছে।

তবে মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রের কাছে আর্জি জানিয়েছেন, বেশী সংখ্যক শ্রমিক ট্রেন চালানোর জন্য। কারণ তাঁর মতে শ্রমিক ট্রেনের সংখ্যা অপর্যাপ্ত হওয়ায় এক–একটি ট্রেনে বেশী সংখ্যক মানুষ আসছেন। ফলে বাড়ছে সংক্রামিত হওয়ার সম্ভবনা এবং উত্তরোত্তর বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।

তবে রাজ্যের মানুষদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, বাস, অটো, ট্যাক্সি – সকল গণপরিবহনই উপলব্ধ হবে নির্দিষ্ট রুটগুলিতে। কিন্তু এই গণপরিবহনে ট্র্যাভেল করার আগে অবশ্যই ভালো করে হাত স্যানিটাইজ করে নিন এবং মাস্ক ব্যবহার করা আবশ্যক।

Related link - https://bengali.krishijagran.com/agripedia/some-great-ways-to-be-profited-by-investing-in-agriculture/

https://bengali.krishijagran.com/others/start-a-tissue-manufacturing-business-with-a-small-investment-which-will-give-you-more-profit/

https://bengali.krishijagran.com/news/finance-minister-announces-rs-86-600-crore-loan-have-been-provided-in-the-agriculture-sector-interest-rate-rebate-till-may-31st/

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters