পশ্চিমবঙ্গ ও আসামের চা শিল্পে (Tea Industry) ৩ মাসের মধ্যে ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক ২,১০০ কোটি

Tuesday, 26 May 2020 08:24 PM

Indian Tea Association –এর তথ্য অনুযায়ী, লকডাউনের কারণে আসাম এবং পশ্চিমবঙ্গে চা উত্পাদন মার্চ ও এপ্রিল মাসে ৬৫ শতাংশ এবং মে মাসে প্রায় ৫০ শতাংশ কমেছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, এই দুটি রাজ্যে তিন মাসের মধ্যে মোট উত্পাদন হ্রাস পেয়েছে প্রায় ১৪০ মিলিয়ন কেজি। আশঙ্কা করা হচ্ছে, মার্চ, এপ্রিল এবং মে মাসে আসাম ও পশ্চিমবঙ্গের চা শিল্পের ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক প্রায় ২,১০০ কোটি টাকা।

ITA-এর একজন কর্মকর্তা বলেছেন, "কোভিড -১৯ মহামারীর কারণে লকডাউনের ফলে দীর্ঘদিন কাজ বন্ধ ছিল, ফলে উৎপাদন কমেছে অনেকাংশেই। পরবর্তীকালে সরকার থেকে কার্যক্রম পুনরায় চালু করার অনুমোদন মিললেও করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে অনেক শ্রমিকই কাজ করতে অসম্মত ছিলেন। ফলত কর্মী মোতায়েনের ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দেয়। আর যারা কাজ করতে সম্মত হন, তারাও উচ্চ পারিশ্রমিক দাবি করেন, পরিবহন ক্ষেত্রেও সমস্যা, সব মিলিয়ে চাহিদা ও সরবরাহের মধ্যে মূল্য স্থবিরতার কারণে এই খাতটি ব্যয়বহুল চাপের মধ্যে পড়েছে। আভ্যন্তরীণ ব্যয় গত পাঁচ বছর ধরে বৃদ্ধি পেয়েছে, কিন্তু দামের ক্ষেত্রে কোনও সামঞ্জস্য বাড়েনি।

চা প্ল্যান্টারদের শীর্ষস্থানীয় সংস্থা, বাণিজ্য মন্ত্রক এবং আসাম ও পশ্চিমবঙ্গের রাজ্য সরকারকে আর্থিক প্যাকেজ বাড়ানোর জন্য অনুরোধ করেছে, যার মধ্যে সুদের আওতা, কার্যকরী মূলধনের সীমা বৃদ্ধি, বিদ্যুতের ব্যয় এবং পিএফের বকেয়া পরিশোধের ত্রাণ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।  

স্বপ্নম সেন

Related Link - https://bengali.krishijagran.com/news/pm-modis-financial-package-is-a-big-zero-said-by-wb-cm-mamata-banerjee/

English Summary: In West Bengal and Assam The loss to the ITA Estimates at Rs 2,100 crore in three months

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.