জাতীয় দুগ্ধ দিবস (National Milk Day), কেন পালন করা হয় এই দিনটি, কেন দুধ পান করব আমরা, আমাদের দৈনন্দিন জীবনে দুধের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা

Thursday, 26 November 2020 04:59 PM
Milk product

Milk product

আজ জাতীয় দুগ্ধ দিবস, ইন্ডিয়ান হোয়াইট রেভলিউশনের জনক হিসাবে পরিচিত ডঃ ভার্গেস কুরিয়ানের জন্মদিন। জাতীয় দুগ্ধ দিবস ভারতীয় দুগ্ধ সমিতি কর্তৃক পেশকৃত একটি ক্রিয়াকলাপ। ২০১৪ সাল থেকে সমগ্র ভারতে এই দিনটি উদযাপিত হয়। আমুল সহ অনেক দুগ্ধ সংগঠন এই দিনটিতে সারাদেশে প্রকাশ্য অনুষ্ঠান এবং ভার্গেস কুরিয়ানের স্মরণ অনুষ্ঠান পালন করে। জাতীয় দুগ্ধ দিবস উদযাপনের ধারণাটি বিশ্ব দুগ্ধ দিবসের সূচনা হিসাবে এসেছে, যা ২০০১ সাল থেকে পালিত হচ্ছে। দুগ্ধ ও দুগ্ধজাতীয় খাবারগুলি আমাদের স্বাস্থ্যকর জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ খাদ্য উত্স। এই দিনটি উদযাপন করে, ইন্ডিয়ান ডেইরি অ্যাসোসিয়েশন লক্ষ্য হল সুষম খাদ্য হিসাবে দুধের গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানো।

দুগ্ধ খাত হ'ল ভারতীয় কৃষি অর্থনীতির মেরুদণ্ড। দুগ্ধ খাত কেবল ভারতীয় অর্থনীতিতে নয়, বিশ্ব অর্থনীতিতেও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এই ক্ষেত্রটিতে জীবিকা নির্বাহের জন্য অনেকে কাজ করছেন। দুধ উৎপাদনের ক্ষেত্রে ভারত অনেক কৃতিত্ব অর্জন করেছে। তবে এই কৃতিত্ব অর্জনের সূচনার পশ্চাতে যার মহৎ প্রচেষ্টা ও উদ্যোগ রয়েছে, তিনি হলেন ড. ভার্গেস কুরিয়ান নামে একজন মালয়ালি, তিনি দুগ্ধ শিল্পকে উন্নতির শিখরে স্থাপন করেন। তিনি দুগ্ধচাষীদের আর্থিক সুরক্ষা নিশ্চিত করতে স্থানীয় অঞ্চলগুলিতে সমবায় সমিতির কার্যক্রমে আরও উন্নতি সাধন করতে সক্ষম হয়েছিলেন।

Dr. Verghese Kurien

Dr. Verghese Kurien

স্থানীয় সমবায় সমিতিগুলির মাধ্যমে গ্রামীণ অঞ্চল থেকে দুধ সংগ্রহ করতে এবং স্থানীয় দুধ প্রক্রিয়াকরণ কেন্দ্রগুলিতে মূল্য সংযোজনীয় পণ্য সরবরাহ করার ক্ষেত্রে আজ আমাদের দেশের একটি দুর্দান্ত বিপণন নেটওয়ার্ক রয়েছে। কেরল বছরে ২.৫ লক্ষ টন দুধ উত্পাদন করে। কেরালা দুধ উৎপাদনে স্বাবলম্বী। সরকার এই খাতের জন্য বিভিন্ন পরিকল্পনা তৈরি করছে।

দুধে থাকা পুষ্টির তথ্য (Milk rich in Nutrition) –

দুগ্ধ এবং দুগ্ধজাত যে কোন খাদ্য পুষ্টিতে পরিপূর্ণ। দুধে ক্যালসিয়াম, আয়োডিন, ফসফরাস এবং ভিটামিন বি ২, বি ১২ রয়েছে, যা বাচ্চাদের বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয়। দুধ পান করলে তা হজমে সহায়তা করে। সিরোটোনিন হিসাবে দুধে থাকা ট্রিপটোফান শরীরে শক্তি সরবরাহ করে। দুধে ৪.৮ গ্রাম স্টার্চ, ৩.৯ গ্রাম ফ্যাট এবং ৩.২ গ্রাম প্রোটিন রয়েছে। এটিতে ১২০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম এবং ১৪ মিলিগ্রাম কোলেস্টেরল রয়েছে। (এখানে স্টার্চের উপস্থিতি ল্যাকটোজ আকারে রয়েছে)। ১০০ মিলি গরুর দুধে ৬৬ ক্যালোরি রয়েছে। ১০০ মিলি গরুর দুধে ৮৭.৮ গ্রাম জল থাকে।

দুধ খাওয়ার উপকারিতা (Benefits of drinking milk) -

দুগ্ধ এবং দুগ্ধজাত পণ্যগুলি কখনই আমাদের জীবন থেকে বাদ দেওয়া উচিত নয়। দুধে থাকা ক্যালসিয়াম হাড় এবং দাঁতের জন্য ভাল। এটি ভিটামিন এ সমৃদ্ধ হওয়ায় এতে চোখও ভালো থাকে। এছাড়া দুধে রয়েছে পটাসিয়াম, যা রক্তচাপকে বাড়তে দেয় না। একজন বয়স্ক মানুষের প্রতিদিন কমপক্ষে ১৫০ মিলি দুধ পান করা উচিত। শুতে যাওয়ার আগে এক গ্লাস গরম দুধ পান করা স্বাস্থ্যের পক্ষে ভাল, এতে ঘুম ভালো হয়। প্রত্যহ দুধ পান করলে তা আপনার স্মৃতিশক্তি প্রখর রাখতে সহায়তা করবে। তাই আজ থেকেই দুধকে আপনার জীবনযাত্রার একটি অংশ করুন, প্রত্যহ দুধ পান করুন, সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হয়ে উঠুন।

Image source - Google

Related link - (World Fisheries Day) আজ ২১ শে নভেম্বর বিশ্ব মৎস্য দিবস পালন আঙ্গিকে মানসম্পন্ন জীবনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কার্যকরী খাদ্য হিসাবে মাছ এর ভূমিকা

English Summary: National Milk Day, why this day is celebrated, why we drink milk, milk plays an important role in our daily life

আপনার সমর্থন প্রদর্শন করুন

প্রিয় অনুগ্রাহক, আমাদের পাঠক হওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার মতো পাঠকরা আমাদের কৃষি সাংবাদিকতা অগ্রগমনের অনুপ্রেরণা। গ্রামীণ ভারতের প্রতিটি কোণে কৃষক এবং অন্যান্য সকলের কাছে মানসম্পন্ন কৃষি সংবাদ বিতরণের জন্যে আমাদের আপনার সমর্থন দরকার। আপনার প্রতিটি অবদান আমাদের ভবিষ্যতের জন্য মূল্যবান।

এখনই অবদান রাখুন (Contribute Now)

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.