(Implementation of two central scheme) ‘পিএম কিষাণ, আয়ুষ্মান ভারত যোজনা’ কেন্দ্রের দুই প্রকল্পের বাস্তবায়ন এবার পশ্চিমবঙ্গে

KJ Staff
KJ Staff
CM Mamata Banerjee
CM Mamata Banerjee

অবশেষে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের পর পিএম কিষাণ, আয়ুষ্মান ভারত যোজনার বাস্তবায়ন সম্পর্কে মত বদল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের। এই প্রকল্প দুটি রাজ্যে বাস্তবায়ন করতে দুই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে বিশেষ চিঠি পাঠিয়েছে রাজ্য সরকার।

পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া প্রায় সব রাজ্যেই পিএম কিষাণ, আয়ুষ্মান ভারত যোজনার বাস্তবায়ন হয়েছে। শুধুমাত্র বাংলাই কেন্দ্রের কয়েকটি প্রকল্প থেকে বঞ্চিত ছিল। সম্প্রতি কৃষি বিল, ২০২০ নিয়ে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে সর্বত্র। রাজ্যপাল টুইটের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন যে, ‘কিষাণ সম্মান নিধি যোজনা পশ্চিমবঙ্গে প্রচলন না হওয়ায়, এই রাজ্যের ৭০ লক্ষ কৃষক ৮,৪০০ কোটি টাকার সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। এই প্রকল্প রাজ্যে থাকলে কৃষকেরা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে বছরে ৬০০০ করে টাকা পেতে পারতেন এবং সাথে অন্যান্য সুবিধাও। কিন্তু এই প্রকল্প এ রাজ্যে চালু না করায় কৃষকেরা এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত আছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো জানিয়েছেন যে, পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া অন্যান্য সমস্ত রাজ্যের কৃষক কেন্দ্রের এই প্রকল্প দ্বারা বিশেষভাবে উপকৃত হয়েছেন’।

এই ঘটনার পর টুইট করে রাজ্যপালকে রাজ্য প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়, বিগত ৯ ই সেপ্টেম্বর পশ্চিমবঙ্গে ‘কিষাণ সম্মান নিধি যোজনা’ প্রকল্পটি চালু করতে কেন্দ্রীয় কৃষি মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরকে চিঠি পাঠিয়েছে রাজ্য সরকার।

করোনা পরিস্থিতিতে ইতিমধ্যে সুপ্রিম কোর্ট থেকে পশ্চিমবঙ্গ সহ ৬ টি রাজ্যকে নোটিশ পাঠানো হয়। চিঠিতে সুপ্রিমকোর্টের তরফ থেকে জানতে চাওয়া হয় যে, বিরোধী শাসিত এই রাজ্যগুলিতে কেন করোনা সংক্রমণ কালেও আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্পটি চালু হয়নি?  

পশ্চিমবঙ্গে এই দুটি কেন্দ্রীয় প্রকল্প এতদিন কেন চালু হয়নি, তার পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী চিঠিতে জানান, পশ্চিমবঙ্গে স্বাস্থ্য সাথী নামে এক প্রকল্প রয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় যথেষ্ট সুবিধা পাচ্ছেন রাজ্যবাসী। অন্যদিকে, কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্প পশ্চিমবঙ্গে চালু না থাকলেও, এ রাজ্যে কৃষকবন্ধু প্রকল্প চালু থাকায় তার বিশেষ সুবিধা লাভ করছেন বাংলার কৃষকেরা।

'স্বাস্থ্য সাথী' প্রকল্প থেকে রাজ্যের সাড়ে সাত কোটি মানুষ সুবিধা পান। এর মাধ্যমে বেসরকারি হাসপাতালে ক্যান্সার, কিডনির অসুখ, হৃদরোগ-সহ নানা জটিল রোগের চিকিৎসা করাতে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত খরচ বহন করা হয়। সমস্ত টাকাই দেওয়া হয় রাজ্য বাজেট থেকে। তাই কেন্দ্র মনে করলে আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প রূপায়ণে রাজ্যের জন্য বরাদ্দ সমস্ত টাকা রাজ্য সরকারের হাতে সরাসরি তুলে দিক।

প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি সম্পর্কে মমতা লিখেছেন, রাজ্য সরকার ইতিমধ্যে 'কৃষকবন্ধু' প্রকল্প চালু করেছে। ক্ষুদ্র চাষিরা এর সুবিধা পাচ্ছেন। বছরে এই প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষককে পাঁচ হাজার টাকা সাহায্য দেওয়া হয়। কৃষকের মৃত্যু হলে তাঁর পরিবারকে দু'লক্ষ টাকা দেওয়া হয়। ৭৩ লক্ষ কৃষক এই প্রকল্পের সুবিধা পান। রাজ্য বাজেট থেকে এই কাজ করা হয়। তাই কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্প রাজ্যে বাস্তবায়ন করতে পশ্চিমবঙ্গের জন্য বরাদ্দ টাকা সরাসরি রাজ্য সরকারকে দেওয়া হোক, রাজ্য পরিকল্পনামাফিক তা বাস্তবায়ন করবে।

Image source - Google

Related link - (Pension for farmer) কৃষকরা মাত্র ৫৫ টাকা বিনিয়োগে সরকারের এই প্রকল্পে পাবেন প্রতি মাসে ৩০০০ টাকা মাসিক ভাতা

(Pashu kisan credit card, apply) গরু-মহিষ- ছাগল পালন করতে চান? অথচ আর্থিক সমস্যা? সহায়তা করবে সরকার পশু কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে, এই পদ্ধতিতে আবেদন করুন

Like this article?

Hey! I am KJ Staff. Did you liked this article and have suggestions to improve this article? Mail me your suggestions and feedback.

Share your comments

আমাদের নিউজলেটার অপশনটি সাবস্ক্রাইব করুন আর আপনার আগ্রহের বিষয়গুলি বেছে নিন। আমরা আপনার পছন্দ অনুসারে খবর এবং সর্বশেষ আপডেটগুলি প্রেরণ করব।

Subscribe Newsletters