সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা (Sukanya Samriddhi Yojana ) - আপনার কন্যাকে এবং আপনাকে করবে কোটিপতি

Monday, 18 May 2020 04:01 AM

সমগ্র বিশ্ব কোভিড -১৯ মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে। এই সময় অনেকেই তাদের বিনিয়োগ নিয়ে চিন্তিত। তবে সরকার-সমর্থিত ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পের জন্য এখন বিনিয়োগ করা সর্বোত্তম। ২০২০ সালের এপ্রিল-জুনে সরকার ক্ষুদ্র সঞ্চয় প্রকল্পের সুদের হার কমিয়ে দেওয়ার পরেও, এমন কয়েকটি স্কিম রয়েছে যা এখনও লাভদায়ক। এরকম একটি প্রকল্প হ'ল সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা (এসএসওয়াই)। এই স্কিমটিতে, আপনার মেয়ে ২১ বছর বয়স হওয়ার পর আপনি  ভালো পরিমাণ অর্থ পেতে পারেন, তবে তার জন্য তাড়াতাড়ি বিনিয়োগ করতে হবে।

সুকন্যা যোজনা কীভাবে কাজ করে?

সুকন্যা যোজনা অনুসারে, কোনও মেয়ের বাবা-মা উভয়ই এই স্কিমটিতে ১৫ বছরের জন্য বিনিয়োগ করতে পারবেন (পরিবর্তিত নিয়মে, আগে এটি ১৪ বছর ছিল)। লক্ষণীয় বিষয় হল, আপনি যদি আপনার মেয়ের জন্মের পরপরই সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা অ্যাকাউন্টে বিনিয়োগ শুরু করেন, তবে এক বছরে বাবা এবং মা দুজনেই দেড়- দেড় অর্থাৎ তিন লক্ষ টাকা বার্ষিক বিনিয়োগ করতে পারবেন।

সুকন্যা সমৃদ্ধি প্রকল্পের সুদের হার কত?

এই প্রকল্পে, সুকন্যা যোজনা অ্যাকাউন্টটি পুরো বিনিয়োগের সময়কালে অ্যাকাউন্ট খোলার সময় সুদের হার প্রাপ্ত হওয়ায় বিনিয়োগের বছর জুড়ে সুদের হার একই থাকে। সুতরাং, যদি কেউ এপ্রিল - জুন ২০২০ এর ত্রৈমাসিকে এসএসওয়াই অ্যাকাউন্ট খোলেন, তবে তিনি বিনিয়োগের পুরো সময়কালে ৭.৬% সুদের হার পাবেন।

সুকন্যা যোজনা কীভাবে খুলবেন?

সুকন্যা যোজনা অ্যাকাউন্ট ভারতে পরিচালিত যে কোনও ব্যাঙ্কে খোলা যেতে পারে। বর্তমানে সুকন্যা প্রকল্পটি বার্ষিক ৭.৬ % সুদ প্রদান করছে, যা পিপিএফ, এনপিএস ইত্যাদির মতো অন্যান্য ছোট ছোট সঞ্চয় প্রকল্পের তুলনায় এখনও অনেক বেশি। এসএসওয়াই অ্যাকাউন্ট বাচ্চার ১০ বছর বয়সী হওয়ার আগেই তার জন্ম থেকে যে কোনও সময় কন্যার নামে খোলা যেতে পারে। এতে প্রতি বছর সর্বনিম্ন বিনিয়োগের পরিমাণ এক হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত। তবে কন্যার ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত কেউ টাকা তুলতে পারবেন না (কিছু ছাড়ের সাপেক্ষে)। এমনকি মেয়ে সন্তানের ১৮ বছর পরে, অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্সের কেবল ৫০% ই কন্যা সন্তানের উচ্চতর পড়াশোনার জন্য প্রত্যাহার করা যেতে পারে।

এসএসওয়াই অ্যাকাউন্টহোল্ডারদের আয়কর সুবিধা -

যেহেতু এই স্কিমটি ইপিএফ বা পিএফ-এর পরে সর্বোচ্চ রিটার্ন দিচ্ছে, তাই যেসব বাবা-মায়ের কন্যা সন্তান রয়েছে, আয়কর ৮০ সি এর অধীনে তাদের ১.৫ লক্ষ বার্ষিক বিনিয়োগের সীমায় ঝুঁকি সম্পর্কে পরামর্শ নেওয়া উচিত।

সুকন্যা যোজনা ক্যালকুলেটর –

 উপরে উল্লিখিত বিনিয়োগের কৌশলটি অনুসরণ করা হলে দেখা যাবে, যদি মাসে যাবে ১২,৫০০ টাকা বা সুকন্যা সমৃদ্ধি যোজনা অ্যাকাউন্টে ১.শিচ্যররফ৫  মিলিয়ন টাকা বিনিয়োগ করস হয়, তবে একজন মেয়ের যখন ২১ বছর বয়স তখন তার কাছে থাকবে ৬৩,৯৭৮৫৫ টাকা।

সুতরাং, যদি মা এবং বাবা প্রতি মাসে ১২,৫০০ টাকা বিনিয়োগ করেন, তবে তাদের বিনিয়োগকৃত অর্থ দ্বিগুণ হয়ে যায় অর্থাৎ ২৫,০০০০। তাদের বার্ষিক বিনিয়োগও দ্বিগুণ হয়ে যায় তিন লাখ টাকা (১.৫ লক্ষ*২) ।

পরিশেষে রাশির পরিমাণ – ১,২৭,৯৫,৭১০ (৬৩,৯7,৮৫৫*২) বা ১.২ কোটি টাকা।

উল্লেখ্য যে, সুকন্যা যোজনায় অ্যাকাউন্টে বার্ষিক বিনিয়োগের সীমাবদ্ধতা নেই, তবে এক্ষেত্রে বছরে মাত্র দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত আয়কর ছাড় পাওয়া যাবে।

স্বপ্নম সেন 

English Summary: Sukanya Samriddhi Yojana - Your daughter and you will become millionaire


Krishi Jagran Bengali Magazine Subscription Subscribe Online

Download Krishi Jagran Mobile App
Helo App Krishi Jagran

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.