ঘাড়ে ব্যাথা? হয়ত আপনার হার্ট অ্যাটাক হচ্ছে

Thursday, 13 December 2018 03:39 PM

হার্ট অ্যাটাক হল একটি জীবনঝুঁকির ঘটনা, তবে বিশেষজ্ঞরা বলেন যে নারীরা চিকিৎসার জন্য পুরুষদের থেকে অনেক বেশিক্ষণ ধরে অপেক্ষা করেন। একটি নতুন গবেষণা তাই বলে। বিশেষজ্ঞরা খুঁজে পেয়েছেন যে পুরুষের তুলনায় মহিলাদের প্রথম হার্ট অ্যাটাক থেকে বাঁচার সম্ভাবনা কম, যদিও পুরুষ-মহিলা দুজনের জন্যই মৃত্যুর প্রধান কারণ হৃদরোগ হতে পারে। এর কারন হল যে মহিলাদের হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণগুলি পুরুষদের চেয়ে সামান্য আলাদা এবং সেটিকে সাধারণত অবহেলাই করা হয়।

ইউরোপীয় হার্ট জার্নালে প্রকাশিত গবেষণায় দেখা গেছে যে, হার্ট অ্যাটাকের সময় মহিলারা চিকিৎসার সাহায্যের জন্য পুরুষের তুলনায় প্রায় 37 মিনিটের বেশি অপেক্ষা করে। গবেষণায় সহ-লেখক ম্যাথিয়াস মেয়ের একটি বিবৃতিতে বলেন, “নারীদের হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা পুরুষদের চেয়ে অনেক কম থাকে এবং তাদের লক্ষণগুলি এমন একটি বৈশিষ্ট্যযুক্ত হয় যাতে জরুরি চিকিৎসার প্রয়োজন হয়।”

গবেষকরা আরও উল্লেখ করেছেন যে পুরুষদের তুলনায় মহিলাদের হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ আলাদা রকমের হতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে, হার্ট অ্যাটাকের সময় নারী ও পুরুষের একই রকম যন্ত্রণা হয়, তবে অবস্থানটি ভিন্ন হতে পারে। মেয়ের আরও বলেন যে বুকে ব্যথা এবং বাম হাত ব্যাথা হল পুরুষদের জন্য হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ হয়, মহিলাদের ক্ষেত্রে সেটা প্রায়ই শরীরের পিছনে, কাঁধে বা পেটে ব্যথার ওপর নির্ভর করে।

গবেষকরা 4,360 জন প্রাপ্তবয়স্কদের ওপর পরীক্ষা করেছিলেন। যারা 2000 থেকে 2016 সালের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছিল। হার্ট অ্যাটাকের সময় চিকিৎসার সাহায্যের জন্য কতক্ষণ অপেক্ষা করতে পারে সেটা নিয়ে পুরুষ ও মহিলাদের মধ্যে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছিল। তারা চিকিৎসা করার সময়ও বিশ্লেষণ করে, অর্থাৎ রুগীকে চিকিৎসা করতে ডাক্তারের কতটা সময় লেগেছিল।

গবেষণা থেকে ফলাফল দেখিয়েছে যে 16 বছর মেয়াদে নারী ও পুরুষ উভয়কেই চিকিৎসা করার জন্য যে সময় দরকার তা হ্রাস পেয়েছে। গবেষকরা পর্যবেক্ষণ করেছেন যে ডাক্তাররা যত্নশীলভাবে সময়মত চিকিৎসা করলে পুরুষ ও মহিলার মধ্যে কোনো বৈষম্য থাকে না। তবে, তারা আবিষ্কার করেছেন যে মহিলারা অন্তত 37 মিনিট থেকে এক ঘন্টা পর্যন্ত অপেক্ষা করে চিকিত্সার সাহায্যের জন্য।

গবেষকরা বিশ্বাস করেন যে মহিলাদের মধ্যে চিকিৎসার বিলম্বের ফলে তাদের হাসপাতালে থাকা অবস্থায় মৃত্যুর হার বেড়েছে। হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণগুলি বুঝে এবং সেটাকে ঠিকমতো চিহ্নিত করতে পারলে তা প্রাথমিক চিকিৎসা পেতে অনেক বেশী সহায়তা করে এবং জটিলতাগুলি কমিয়ে দেয়।

- অভিষেক চক্রবর্তী(abhishek@krishijagran.com)

Share your comments



Krishi Jagran Bengali Magazine Subscription Subscribe Online

Download Krishi Jagran Mobile App

CopyRight - 2018 Krishi Jagran Media Group. All Rights Reserved.